মঙ্গলবার , ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ , ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ , ১৫ই রবিউস সানি, ১৪৪২

হোম > শীর্ষ খবর > অপতৎপরতা না থাকলে জয় আমার: আজমত

অপতৎপরতা না থাকলে জয় আমার: আজমত

শেয়ার করুন

সটাফ রিপোর্টার ॥ গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশা ব্যক্ত করেছেন মহাজোট সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আজমত উল্লাহ খান।

তিনি বলেন, ‘আমি জনগণের সমর্থন নিয়ে নির্বাচনে নেমেছি। জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে আমার জন্য যেভাবে কাজ করছে, তাতে জয়ের বিষয়ে কোনো দ্বিধা থাকতে পারে না। বিরোধী শিবিরের কোনো অপতৎপরতা না থাকলে অবশ্যই আমি শতভাগ জয়ী হব।’

নির্বাচনের আগের দিন শুক্রবার বিকেলে টঙ্গী পৌরসভা প্রাঙ্গণে কাছে এমন আশা প্রকাশ করেন তিনি।

আজমত উল্লাহ খান বলেন, ‘আল্লাহর ওপর আস্থা রেখে মাঠে নেমেছি। জনগণ আমার বড় শক্তি। তারা আমার জন্য নিবেদিতভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এরপরেও রায় অন্যদিকে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। তবে ফলাফল যা-ই হোক, আমি সেটা মাথা পেতে নেবো।’

তিনি বলেন, ‘মহাজোটের প্রতি দেশের মানুষের আস্থা আছে। আমি সেখান থেকে সমর্থন পেয়েছি। নির্বাচনে জয় পাওয়ার বড় একটি সুযোগ আমার জন্যেই আছে। আমি মনে করি, আমি জয়ী হলে জনগণেরই জয় হবে।’

এরশাদের ঘোষণার পরও জাতীয় পার্টির কর্মীরা তার বিরুদ্ধে কাজ করছে, এমন অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে আজমত উল্লাহ বলেন, ‘এসব কথা বলে কেবলই বিভ্রান্ত ছড়ানো হচ্ছে। পক্ষান্তরে জাতীয় তৃণমূলের সব নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধভাবে দোয়াত কলম প্রতীকের (আজমতের প্রতীক) জন্য মরিয়া হয়ে কাজ করছে। বিরোধী প্রার্থী এমন বিভ্রান্তি ছড়িয়ে ফায়দা হাসিলের সুযোগ নিচ্ছেন।’ কিন্তু এসব কথা বলে আমার জয় ঠেকানো যাবে না বলে তিনি মন্তব্য করেন।

বিদ্রোহী প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম প্রসঙ্গে এ মেয়রপ্রার্থী বলেন, ‘জাহাঙ্গীর প্রথমে নির্বাচনে দাঁড়িয়েছিল ঠিকই কিন্তু দলের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সে আমার জন্য নিবেদিতপ্রাণে কাজ করছে। আমরা নেতাকর্মীরা বিভিন্ন ভাগে বিভক্ত হয়ে নিরবচ্ছিন্ন কাজ করেছি। আমরা কখনও কখনও একসঙ্গেও কাজ করেছি। সর্বশেষ জাহাঙ্গীর আমার প্রতীক দোয়াত কলমে ভোট দেয়ার জন্য মোবাইলে বিভিন্নজনের কাছে এসএমএসও পাঠিয়েছে। এরপরও সংশয়ের আর কোনো সুযোগ নেই।’

রাজউকের ডিটেইলড এরিয়া প্ল্যান (ড্যাপ) বাস্তবায়ন আপনার জয়ে কোনো বাধা হয়ে দাঁড়াবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা অবশ্যই ড্যাপ বাস্তবায়নের পক্ষে। কিন্তু রাজউক যেভাবে এর খসড়া ম্যাপ করেছে, সেটা সঠিক নয়। সঠিক ড্যাপ বাস্তবায়ন হোক এটা আমরাও চাই। গাজীপুরবাসী এ বিষয়টি স্পষ্ট জানে। সুতরাং এটা বাধা হওয়ার কোনো কারণ নেই।’

নির্বাচনে জয়ী হলে গাজীপুর সিটিকে আধুনিক সিটি করপোরেশন হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে আজমত বলেন, ‘জয় পেলে আমার পুরো সময়কে তিনভাগে বিভক্ত করবো। এরমধ্যে প্রথম দুই বছর শর্ট টার্ম, দ্বিতীয় দেড় বছর মিড টার্ম এবং শেষ দেড় বছর লং টার্ম প্ল্যানিং নিয়ে কাজ করব। পূর্ব অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে ভবিষ্যতে গাজীপুর সিটি করপোরেশনকে পরিকল্পিত নগরায়নের দিকে এগিয়ে নেব।’

গাজীপুর জেলায় আজমত উল্লাহ একজন পরীক্ষিত নেতা। জেলা আওয়ামী লীগের এই সাধারণ সম্পাদক দীর্ঘদিন টঙ্গীর পৌর মেয়র ছিলেন। তিনি বাংলাদেশ পৌর মেয়র সমিতির সভাপতি।

>