শনিবার , ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ , ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ , ১২ই রবিউস সানি, ১৪৪২

হোম > গ্যালারীর খবর > আবারো থ্রিজি আবেদনের সময় বাড়লো

আবারো থ্রিজি আবেদনের সময় বাড়লো

শেয়ার করুন

বাংলাভূমি ডেস্ক ॥ আবারো বাড়ানো হয়েছে থ্রিজি আবেদনের সময়সীমা। নতুন সময় অনুযায়ী ১ আগস্ট পর্যন্ত আবেদন করা যাবে। আর যোগ্য অপারেটরদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হবে ৫ আগস্ট।
এর আগে আবেদন ও তালিকা প্রকাশ করা তারিখ ছিল যথাত্রুমে ১০ জুলাই ও ১৮ জুলাই।
তবে নিলাম সূচিতে কোন পরিবর্তন আসেনি। পূর্বের সময়সূচি অনুযায়ী নিলাম অনুষ্ঠিত হবে ২ সেপ্টেম্বর। এই নিয়ে চতুর্থ দফায় আবেদন ও যোগ্য অপারেটরদের তালিকার সময় বাড়ানো হলো। আর নিলাম পেছানো হয়েছে তিনবার।
২ সেপ্টেম্বরের মধ্যেই নিলামে বিজয়ীদের নাম জানিয়ে দেওয়া হবে।
বিটিআরসি’র লিগ্যাল অ্যান্ড লাইসেন্সিং বিভাগের উপ-পরিচালক তারেক হাসান সিদ্দিকী স্বাক্ষরিত এক নোটিশে এসব তথ্য জানা গেছে।
পূর্বের সূচি অনুযায়ী ২৪ জুন থ্রিজি লাইসেন্সের নিলাম অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। পরবর্তীতে নতুন সূচি অনুযায়ী তা পিছিয়ে করা হয় ৩১ জুলাই। এবার পিছিয়ে তা করা হলো ২ সেপ্টেম্বর।
জানা গেছে, পরামর্শক না পাওয়াসহ নিজেদের সার্বিক প্রস্তুতি না থাকার কারণেই থ্রিজি লাইসেন্স নিলামের সময়সীমা বারবার পেছাতে হচ্ছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি)।
এছাড়া অপারেটরদের নিলামের আগেই লাইসেন্সের ওপর মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) কমানো, টুজি লাইসেন্স ভ্যাট ইস্যুসহ কয়েকটি বিষয়ে সমঝোতা না হওয়া থ্রিজি নিলাম পিছিয়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ।
মূলত থ্রিজি নিলাম সংক্রান্ত বিষয়ে বিটিআরসিতে ভালোমানের কোনো বিশেষজ্ঞ নেই। বিশেষজ্ঞ না থাকার কারণে এ সংক্রান্ত কাজগুলো সঠিকভাবে সম্পন্ন করা তাদের জন্য কঠিন হয়ে পড়েছে।
দেশে পাঁচ মোবাইল অপারেটরদের মধ্যে তিনটি এবং একটি বিদেশি অপারেটরকে থ্রিজি লাইসেন্স দেওয়া হবে। রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান হিসেবে টেলিটককে আগেই থ্রিজি অপারেশন পরিচালনার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। থ্রিজি নীতিমালা অনুযায়ী প্রতি মেগাহার্টজের তরঙ্গ মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।
তরঙ্গ মূল্য নিয়েও দেশের ৫টি অপারেটর আপত্তি জানিয়ে ছিল। এছাড়া ভ্যাট জটিলতার বিষয়টি সমাধান না হওয়া থ্রিজি লাইসেন্সের নিলাম পিছিয়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ।

>