মঙ্গলবার , ৯ই মার্চ, ২০২১ , ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ , ২৪শে রজব, ১৪৪২

হোম > খেলা > ইংলিশ ফুটবলে পাকিস্তানি মার্কিনি

ইংলিশ ফুটবলে পাকিস্তানি মার্কিনি

শেয়ার করুন

স্পোর্টস ডেস্ক ॥ মিশরীয় মালিকানা থেকে পাকিস্তানের জন্ম নেয়া মার্কিনির মালিকানায় আসল ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের কাব ফুলহ্যাম। মার্কিন বিলিয়নিয়ার শহীদ খানের কাছে ইংলিশ কাব ফুলহ্যাম বিক্রি করে দিয়েছেন মিশরীয় মোহামেদ আল ফায়েদ। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে ষষ্ঠ কাব হিসেবে ফুলহ্যাম কোন মার্কিন মালিকানায় গেল।
স্পষ্ট করে জানা না গেলেও ১৫০ মিলিয়ন থেকে ২০০ মিলিয়ন পাউন্ডের কোন একটি পরিমানে কাবটি বিক্রি হয়েছে বলে জানিয়েছে বৃটিশ সংবাদ মাধ্যম। ৬২ বছর বয়সী খানের আগে ২০১১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় ফুটবল লীগের জ্যাকসনভিল জাগুয়ার্স নামের কাবটি কেনেন। মার্কিনি নন এমন প্রথম ব্যক্তি হিসেবে তখন তিনি ওই কাবটির মালিকানা লাভ করেন। এখনও পর্যন্ত তিনি কাবটির মালিক রযেছেন।
মোহামেদ আল ফায়েদ ১৬ বছর ধরে এই ফুলহ্যামের মালিক ছিলেন। ১৯৯৭ সালে ৩ কোটি পাউন্ডে ফুলহ্যাম কেনার পর ১৬ বছরে তৃতীয় ধাপ থেকে ইংলিশ ফুটবলের শীর্ষ পর্যায়ে কাবকে তুলে আনেন ৮৪ বছর বয়সী মিশরীয় মোহামেদ আল ফায়েদ। ১২তম স্থানে থেকে গত মওসুম শেষ করেছে কাবটি।
প্রিয় কাব বিক্রির পর ৮৪ বছর বয়স্ক এই ব্যবসায়ী বলেন, ১৬টি স্মৃতিময় বছর ধরে ফুলহ্যাম ফুটবল কাবের চেয়ারম্যান থাকতে পারাটা আনন্দ ও গর্বের।
ফুলহ্যাম কেনার পর খান বলেন, একদম ঠিক সময়ে ঠিক কাবটি কিনেছি। আমি পরিষ্কার করে বলতে চাই, আমি নিজেকে ফুলহ্যামের একজন মালিক হিসেবে না দেখে সমর্থকদের প থেকে কাবের রক হিসেবে দেখি। নিজের ল্েযর কথাও জানালেন খান, আমার প্রধান কাজ হবে দলকে ভবিষ্যতে প্রিমিয়ার লীগে একটা ভাল অবস্থানে নিয়ে যাওয়া। যাতে ভবিষ্যৎ প্রজম্মের সমর্থকরা গর্ব বোধ করতে পারে।
পাকিস্তানের লাহোরে জন্ম নেয়া খান ১৯৬৭ সালে ১৬ বছর বয়সে প্রকৌশল নিয়ে পড়তে যুক্তরাষ্ট্রে যান। শিল্প প্রকৌশলে স্নাতক করার পর খান ফেক্স-এন-গেইট নামের অটোমোটিভ ফার্ম গড়ে তোলেন। যার কর্মী সংখ্যা বর্তমানে প্রায় ১৬ হাজার। কার যন্ত্রাংশের ব্যবসা করে এখন তিনি বিলিয়নিয়ার। ক্রিকেটের উর্বরভূমি পাকিস্তানে জন্মগ্রহণ করলেও ক্রিকেটের প্রতি তার ঝোঁক খুব একটা বেশি ছিল না। যুক্তরাষ্ট্রে এসে ফুটবলের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন ২০১১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় ফুটবল লীগের জ্যাকসনভিল জাগুয়ার্স নামের কাবটি কেনেন। প্রিমিয়ার লীগের দলগুলোর অন্য বিদেশী মালিকের চেয়ে একটু ভিন্ন খান। চেলসির রাশিয়ান মালিক রোমান আব্রাহামোভিচ ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের মার্কিন মালিক ম্যালকম গ্লাজার মিডিয়ার সঙ্গে খুব কমই কথা বলেন। আর কাবের ফ্যানদের সঙ্গে তাদের মেলামেশা খুব একটা দেখা যায় না। কিন্তু খান ফুলহ্যামের মালিকানা পাওয়ার পরই বলেছেন তিনি সমর্থকদের সঙ্গে মিলেমিশে থাকতে চান।

>