সোমবার , ১লা মার্চ, ২০২১ , ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ , ১৬ই রজব, ১৪৪২

হোম > খেলা > উইম্বলডনের নতুন রানী

উইম্বলডনের নতুন রানী

শেয়ার করুন

স্পোর্টস ডেস্ক ॥
নতুন রানী পেল উইম্বলডন। শনিবার অল-ইংল্যান্ড ক্লাবে মেয়েদের ফাইনালে জার্মানির সাবিনা লিসিস্কিকে ৬-১, ৬-৪ গেমে হারিয়ে শিরোপা জিতে নিলেন ফ্রান্সের মারিওন বারতোলি।
অঘটনের উইম্বলডনে এবার ছিল ‘প্রথম’-এর ছড়াছড়ি। তবে সবকিছু ছাপিয়ে বারতোলির ‘প্রথম’ই হয়ে উঠল সবচেয়ে মহিমাময়। ক্যারিয়ারে এই প্রথমবারের মতো গ্র্যান্ডস্লাম শিরোপা জিতলেন তিনি। এর আগে ২০০৭ সালে এই উইম্বলডনেই ফাইনালে উঠেছিলেন ফ্রেঞ্চ তারকা। তবে অদম্য সেরেনা উইলিয়ামসের সঙ্গে সেবার পেরে ওঠেননি। সাত বছর পর তার হাতে ধরা দিল গ্র্যান্ডস্লাম। গতকাল জয় শেষে উচ্ছ্বসিত বারতোলি বলেন, ‘ছয় বছর বয়স থেকেই এই ট্রফিটা হাতে নেয়ার স্বপ্ন ছিল আমার। সবকিছু স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে।’
প্রথম সেটটা মাত্র ৩০ মিনিটেই জিতে নেন বারতোলি। দ্বিতীয় সেটেও অনবদ্য খেলে ৪-১ গেমের লিড নেন। এ সময় দুবার চ্যাম্পিয়নশিপ পয়েন্ট বাঁচিয়ে ঘুরে দাঁড়ান লিসিস্কি (৫-৪)। তবে দুর্দান্ত এক এইচে ম্যাচ জিতে নেন বারতোলি।
এদিকে, ছেলেদের এককে রবিবার ফাইনালে সার্বিয়ার নোভাক জোকোভিচের মুখোমুখি ব্রিটেনের অ্যান্ডি মারে। টেনিসের অ্যামেচার যুগে ১৯৩৬ সালে উইম্বলডন জিতেছিলেন ফ্রেড পেরি। এরপর আর কোনো ব্রিটিশ খেলোয়াড়ের হাতে ওঠেনি উইম্বলডনের শিরোপা। ব্রিটিশদের ৭৭ বছরের সেই বেদনা লাঘবের সুযোগ এসেছে। গত বছর ফাইনালে রজার ফেদেরারের কাছে হেরে অঝোরে কেঁদেছিলেন মারে। তার কান্নার দৃশ্য টেলিভিশনের পর্দায় দেখেছিলেন বিশ্বের কোটি দর্শক। এরপর মারে অলিম্পিক স্বর্ণ ও ইউএস ওপেন জিতেছেন। এবার উইম্বলডনের শিরোপাও হাতে নিতে চান। ২৬ বছর বয়সী খেলোয়াড় বলেন, ‘গতবারের উইম্বলডন থেকে আমি অনেক শিখেছি। একটি বিষয় নিশ্চিত, আমি এখন শিখেছি কীভাবে বড় ম্যাচ খেলতে হয়। আমি হেরেছি সত্যি, তবে এর জন্য আমার কোনো অনুতাপ নেই। এরই মধ্যে গ্র্যান্ডস্লাম জিতেছি। মানসিকভাবে আমি অনেক পরিপক্ক। রোববারের ফাইনালে আমি শান্ত ও ধীরস্থিরই থাকব।’
ক্যারিয়ারের সপ্তম গ্র্যান্ডস্লাম খেলবেন মারে। এর মধ্যে শিরোপা জিতেছেন একবার। পরশু রাতে সেমিফাইনালে তিনি ৬-৭ (২/৭), ৬-৪, ৬-৪, ৬-৩ গেমে হারান পোল্যান্ডের জর্জি ইয়ানোভিচকে। এ নিয়ে টানা চতুর্থ গ্র্যান্ডস্লাম ফাইনাল খেলতে যাচ্ছেন স্কটিশ তারকা। গতবার উইম্বলডন হারের পর ইউএস ওপেন জিতেছেন জোকোভিচকে হারিয়ে। গত জানুয়ারিতেই অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে মারেকে হারিয়ে প্রতিশোধ নেন জোকোভিচ।

>