বুধবার , ২৭শে জানুয়ারি, ২০২১ , ১৩ই মাঘ, ১৪২৭ , ১৩ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২

হোম > গ্যালারীর খবর > কমেছে কুয়াশার দাপট, বাড়বে শীত

কমেছে কুয়াশার দাপট, বাড়বে শীত

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
গত কয়েক দিন ধরে চলা কুয়াশার দাপট কিছুটা কমেছে। বৃহস্পতিবার দিনের কোলজুড়ে রোদের খেলা থাকবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। তারা আরও বলেছেন, একদিন পিছু হটলেও কুয়াশার আধিপত্য সহসাই কমছে না। একই সঙ্গে দু-তিন দিন পর তাপমাত্রা কমে শীত আরও বাড়বে।

আকাশ কিছু দিন ধরে কুয়াশায় ঢেকে থাকছে। কুয়াশার কারণে বুধবার (৯ ডিসেম্বর) ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সূর্যের দেখা মেলেনি। নদীতে ফেরি ও লঞ্চ চলাচলেও বিঘ্ন ঘটছিল।

বৃহস্পতিবার অগ্রহায়ণের ২৫ তারিখ। আর ৫ দিন পরই কাগজে-কলমের হিসাবে প্রকৃতিতে পা রাখবে চতুর্থ ঋতু শীত, যদিও গ্রাম থেকে শহরে শীত শুরু হয়ে গেছে আগেই।

আজকের সকালটাও ছিল কুয়াশার চাদরে মোড়ানো। কিন্তু বেলা বাড়তেই কুয়াশা কেটে যেতে থাকে। মেঘ-কুয়াশা ভেদ করে বেলা ১১টার মধ্যেই সূর্য তার অস্তিত্বের জানান দেয়।

আবহাওয়ার সার্বিক অবস্থা নিয়ে সকালে কথা হয় আবহাওয়াবিদ মনোয়ার হোসেনের সঙ্গে। কেন এই কুয়াশার দাপট, সেই কারণ জানাতে গিয়ে তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ‘উত্তর-পশ্চিম দিকে ভারত ও নেপালের এলাকা থেকে বাতাসের সঙ্গে এই কুয়াশা (অ্যাডভেকশন ফগ) আমাদের এখানে আসে। শীতের বাতাসটা মূলত ওই এলাকা থেকেই আসে। এগুলো স্থানীয়ভাবে সৃষ্টি নয়। এটার একটা স্কেল থাকে— দুই দিন, চারদিন, সাতদিন এমন। তবে বাতাসের গতি যদি কম থাকলে, তবে কেটে যেতে সময় লাগে, আবার গতি বেশি থাকলে দ্রুত কেটে যায়।’

বর্তমান এই কুয়াশা পরিস্থিতি কতদিন অব্যাহত থাকবে— জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘গতকাল (বুধবার) কুয়াশা বেশি ছিল, সূর্য বলতে গেলে দেখাই যায়নি। কিন্তু আজকে পরিস্থিতি ভাল, সূর্য দেখা যাচ্ছে। সারাদিনটা মোটামুটি এমনই থাকবে। তবে আগামী তিন-চারদিন কুয়াশা পরিস্থিতির তেমন উন্নতি হবে না। সকালের দিকে রোদ উঠতে পারে আবার নাও উঠতে পারে।’

‘আকাশে মেঘ ও নিচে কুয়াশা থাকলে তখন সূর্য দেখাই যায় না। কুয়াশাও হলো এক ধরনের লোয়ার ক্লাউড (নিচু স্তরের মেঘ)। কয়েকদিন ধরে কুয়াশা ও মেঘ দুটোই বেশি।’

ডিসেম্বেরের এই সময়ে কুয়াশা ও শীতের এই পরিস্থিতিকে স্বাভাবিক হিসেবে উল্লেখ করে মনোয়ার হোসেন বলেন, ‘আগামী দিনগুলোতে টেম্পারেচার ফল (তাপমাত্রা কমবে) করবে, এতে স্বাভাবিকভাবেই শীত বাড়বে। তবে তাপমাত্রা কমতে আরও দুই দিন দিন সময় লাগবে।

আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। এটির বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্য-রাত থেকে দুপুর পর্যন্ত মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা এবং বিকেল পর্যন্ত সারাদেশের কোথাও কোথাও তা অব্যাহত থাকতে পারে। এ সময়ে সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে।

বৃহস্পতিবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে নওগাঁর বদলগাছী এবং কুড়িগ্রামের রাজারহাটে। এই দুটি স্থানে সকালে তাপমাত্রা ছিল ১৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। একদিন আগে বুধবার সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল রাজারহাটে, ১২ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বৃহস্পতিবার ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি এবং বুধবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২১ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আজ ভোর ৫টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদী বন্দরগুলোর জন্য আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ভোর ৫টা থেকে পরবর্তী ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা দেশের নদী অববাহিকায় মাঝারি থেকে হালকা ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। যার ফলে দৃষ্টিসীমা ২০০ মিটার বা কোথাও কোথাও আরও কম হতে পারে। এসব এলাকার নৌযানকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে, কিন্তু কোনো সংকেত দেখাতে হবে না।

>