শনিবার , ১৬ই জানুয়ারি, ২০২১ , ২রা মাঘ, ১৪২৭ , ২রা জমাদিউস সানি, ১৪৪২

হোম > জাতীয় > করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ও শীতার্ত ১৪৫০০ পরিবারকে ত্রাণ দেবে বাংলালিংক

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ও শীতার্ত ১৪৫০০ পরিবারকে ত্রাণ দেবে বাংলালিংক

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
চলমান করোনা পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্ত ও শীতার্ত ১৪ হাজার ৫০০ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করবে বাংলাদেশের অন্যতম ডিজিটাল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বাংলালিংক। প্রত্যেক পরিবারকে বাংলালিংকের পক্ষ থেকে প্রদান করা হবে পাঁচ কেজি চাল, এক কেজি ডাল, এক কেজি তেল, আধা কেজি সুজি, এক কেজি চিনি, এক কেজি লবণ ও দুটি সাবান।

বাংলাদেশ সেনা কল্যাণ সংস্থা ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় এই ত্রাণ বিতরণ করা হবে। মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) বাংলালিংক ও সেনা কল্যাণ সংস্থার মধ্যে এ-সংক্রান্ত একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। বাংলালিংকের চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স তাইমুর রহমান ও বাংলাদেশ সেনা কল্যাণ সংস্থার অ্যাক্টিং চেয়ারম্যান এয়ার কমোডর এম মঈনুদ্দিন নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

ঢাকায় সেনা কল্যাণ সংস্থার প্রধান কার্যালয়ে চুক্তি স্বাক্ষর হয়। আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলালিংকের চিফ এথিক্স অ্যান্ড কমপ্লায়েন্স অফিসার মুনিরুজ্জামান শেখ, হেড অব করপোরেট কমিউনিকেশন্স অ্যান্ড সাস্টেইনিবিলিটি আংকিত সুরেকা, হেড অব স্টেকহোল্ডার রিলেশনস হাসিনুল কুদ্দুস, হেড অব এথিক্স অ্যান্ড কমপ্লায়েন্স অপারেশন মো. আদিল হোসেন ও বাংলাদেশ সেনা কল্যাণ সংস্থার ডিজি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ওহিদুল আলম চৌধুরী।

বাংলালিংকের চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান বলেন, ‘করোনা মহামারি ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এবং শীতার্ত পরিবারগুলোর বিভিন্ন সমস্যার কথা বিবেচনা করে আমরা চলতি বছর তৃতীয়বারের মতো ত্রাণ কর্মসূচি গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সামাজিকভাবে দায়বদ্ধ একটি করপোরেট প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলালিংক বিরূপ পরিস্থিতিতে বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে থাকে। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এই পরিবারগুলোর কাছে ত্রাণসামগ্রী পৌঁছে দিতে সাহায্য করার জন্য আমরা আবারও বাংলাদেশ সেনা কল্যাণ সংস্থা ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে ধন্যবাদ জানাই।’

বাংলাদেশ সেনা কল্যাণ সংস্থার অ্যাক্টিং চেয়ারম্যান এয়ার কমোডর এম মঈনুদ্দিন বলেন, ‘চলমান করোনা মহামারি, শীত ও বন্যাপরবর্তী সমস্যার ফলে দেশের কিছু অঞ্চলের জনগোষ্ঠী নানা ধরনের দুর্ভোগের সম্মুখীন হচ্ছে। প্রতিকূল এই পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে সাহায্য করার লক্ষ্যে বাংলালিংকের এই উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই। আমি মনে করি, এ ধরনের সম্মিলিত প্রয়াস দৃষ্টান্তমূলক উদাহরণ সৃষ্টি করে সমাজে ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে।’

এই বছর করোনা মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্ত ৩৫ হাজার ৫০০টিরও বেশি পরিবারের মাঝে ইতোমধ্যে দুই পর্যায়ে ত্রাণ বিতরণ করেছে বাংলালিংক।

>