রবিবার , ৭ই মার্চ, ২০২১ , ২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ , ২২শে রজব, ১৪৪২

হোম > সারাদেশ > কাপাসিয়ায় লুটপাট ও প্রাণনাশের হুমকির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

কাপাসিয়ায় লুটপাট ও প্রাণনাশের হুমকির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

শেয়ার করুন

আকরাম হোসেন রিপন
চীফ রিপোর্টার ॥
গাজীপুর: কাপাসিয়ায় স্থানীয় সন্ত্রাসীদের দ্বারা হামলা, মারধর, লুটপাট ও প্রাণনাশের হুমকির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভূক্তভোগী পরিবার।

রবিবার সকালে কাপাসিয়া প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে নিরাপত্তা ও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার নিকট দাবী জানান তারা।

উপজেলার রায়েদ ইউনিয়নের বলাকোনা গ্রামের মোসাঃ ফাইজুন নাহার সংবাদ সম্মেলণে উপস্থিত হয়ে লিখিত বক্তব্যে জানান, তার স্বামী মোঃ আঃ গাফ্ফার ওরফে বাবুল (৫০) ঢাকায় চাকুরী করেন। তাদের প্রতিবেশী মোঃ মমতাজ উদ্দিনের পুত্র মোঃ কোরবান আলী (৩৮), মৃত হেকিম উদ্দিনের পুত্র আল আমিন (৩২), মৃত ইদ্রিছ আলীর পুত্র মোঃ জয়নাল (২৭), ৪। মৃত ইব্রাহিমের পুত্র কামাল উদ্দিন (৫০) ও মোঃ রতন (৫৫), দীর্ঘদিন যাবত পারিবারিক ভাবে তাদের পরিবারের সকলের সাথে নানাভাবে শত্রুতা পোষণ করে আসছে। তারা প্রায়ই গালিগালাজ করে, এমনকি মারধর করতে আসে। কিছু বললে নানাবিধ ভয়-ভীতি ও হুমকী প্রদান করে। তারা সুযোগ পেলেই ক্ষয়-ক্ষতি এবং হয়রানির চেষ্টায় লিপ্ত থাকায় বিষয়টির ন্যায় সঙ্গত প্রতিবাদ করে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে অবহিত করেন। এতে তারা স্থানীয়ভাবে এর সমাধানে ব্যর্থ হন।

ফায়জুন নাহার আরো জানান, আইন অমান্যকারী উল্লেখিত স্থানীয় সন্ত্রাসীরা এলাকাবাসীর কথায় কর্ণপাত না করে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে এবং এর প্রতিশোধ নিবে বলে এলাকায় প্রকাশ্যে প্রচার করতে থাকে। তার স্বামী মোঃ আঃ গাফ্ফার ওরফে বাবুল গত ২ এপ্রিল বিকাল বেলা বাড়ি হতে একাকী হেটে পার্শ্ববর্তী আবুল হোসেনের মুদি-মনোহরী দোকানে যাচ্ছিল। বিকাল অনুমান সাড়ে ৩টার দিকে স্থানীয় ইকবাল হায়দারের বাড়ির সামনে পৌঁছামাত্র পূর্বশত্রুতার জের ধরে উপরোক্ত সন্ত্রাসীরা লাঠি, লোহার রড, শাবল ইত্যাদি অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে পথরোধ করে গালিগালাজ করে এবং আক্রমণ করে। তারা তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গলায় চেপে ধরে শ্বাসরোধ করার চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে তাকে মাটিতে ফেলে এলোপাথারী পিটিয়ে মাথায় গুরুতর কাটা রক্তাক্ত এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে বেদনাদায়ক নীলাফুলা জখম করে।

এসময় তার সাথে থাকা ২ হাজার ৩ শত টাকা জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেয়। তখন তার ডাকচিৎকারে স্ত্রী ফায়জুন নাহার এগিয়ে গেলে সন্ত্রীরা তাকেও এলোপাথারী পিটিয়ে মারাত্বকভাবে আহত করে এবং গলায় থাকা ৩৫ হাজার টাকা দামের বারো আনা ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নেয়। তখন রাস্তায় চলাচলরত প্রতিবেশী পথচারীরা এ ঘটনা প্রত্যক্ষ করে এবং তাদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসেন। পরে তারা সুযোগমত আমাদের পরিবারের সকলকে খুন, জানমালের ক্ষয়-ক্ষতিসহ কোন ঘটনা সাজাইয়া মামলা মোকদ্দমা দিয়ে হয়রানী করবে বলে হুমকী দিয়ে চলে যায়। ওই সময় আঃ গাফ্ফারকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে চিকিৎসা করান।

পরবর্তীতে নিরুপায় হয়ে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের পরামর্শে ফায়জুন নাহার বাদী হয়ে এ ঘটনায় গত ৮ এপ্রিল কাপাসিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। সে মতে প্যানাল কোডের ১৪৩/৩৪১/৩০৭/৩২৩/৩২৫/৩৭৯/৫০৬ ধারায় মামলা (নং-০৫) রুজু করেন। এতে সন্ত্রাসীরা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে এবং নানাভাবে ভয়-ভীতি ও হুমকী প্রদর্শণ করছে। তারা আইন-আদালত বা জামিনের তোয়াক্কা না করে প্রতিনিয়ত তাদের জানমালের ক্ষতির চেষ্টা করছে। ভূক্তভোগী পরিবারটি বর্তমানে চরম নিরাপত্তাহীনতায় আছেন বলে জানান। তারা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার নিকট নিরাপত্তা ও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানান। এ সময় আঃ গাফ্ফার ওরফে বাবুলের বড়ভাইয়ের স্ত্রী পারুল বেগমসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

>