শুক্রবার , ২৩শে এপ্রিল, ২০২১ , ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ , ১০ই রমজান, ১৪৪২

হোম > লাইফস্টাইল > কেশবতী কন্যার মেঘবরণ চুলের নেপথ্যে

কেশবতী কন্যার মেঘবরণ চুলের নেপথ্যে

শেয়ার করুন

লাইফস্টাইল ডেস্ক ॥ লম্বা চুল কার না পছন্দের। প্রাচীনকাল থেকেই লম্বা চুলের ফ্যাশনটা খুবই জনপ্রিয়। মাঝখানে এর একটু খরা গেলেও এখন আবার লম্বা চুলের ফ্যাশনের জয়-জয়কার। লম্বা চুল দেখতে যেমন সুন্দর তেমনি এর বিশেষ যতেœরও প্রয়োজন। একটু সতর্ক থাকলেই আপনিও পেতে পারেন কাঙ্খিত লম্বা চুল।

লম্বার চুলের জন্য কিছু টিপস-

তামাক, ক্যাফেইন এবং কোমল পানীয়ের সোডা চুলের বৃদ্ধি কমিয়ে দেয়। তাই যতটা সম্ভব এসব এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।

স্বাস্থ্যকর, পুষ্টি সম্বলিত এবং সুষম খাদ্য গ্রহণের অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় টাটকা ফল, সবজি, বাদাম, ছোলা, ডিম, দুধ ও মাংস থাকা উচিত। কারণ চুলের সঠিক ভাবে বেড়ে ওঠার জন্য প্রোটিন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ । সেই সঙ্গে অতিরিক্ত চিনি ও চর্বিযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলুন।

চুলের দ্রুত বৃদ্ধির েেত্র আরেকটি অতি প্রয়োজনীয় উপাদান হচ্ছে ফ্যাটি এসিড, যা পাওয়া যায় মাছ এবং প্রাণিজ প্রোটিন থেকে। তাই উদ্ভিজ্জ প্রোটিনের পাশাপাশি প্রাণিজ প্রোটিন গ্রহণ করতে ভ্লুবেন না।

আপনি যদি চান তবে চুলের বৃদ্ধি ত্বরান্বিত করার জন্য অতিরিক্ত ফুড সাপ্লিমেন্ট গ্রহণ করতে পারেন। যেমন – বায়োটিন, জিংক, ভিটামিন বি-কমপ্লেক্স, আয়রন, ভিটামিন ই, ভিটামিন এ এবং ওমেগা ৩। তবে এর আগে আপনার ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া ভাল।

আরও একটি জরুরি কথা মনে রাখা দরকার, তা হচ্ছে ভেজা চুল আচড়াবেন না। এ সময় চুলের গোড়া নরম থাকে, ফলে চিরুনির আঘাতে চুল ঝরার প্রবণতা বাড়ে।

চুলে অতিরিক্ত গরম পানি ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। এজন্য প্রথমে ঈষদুষ্ণ বা হালকা গরম এবং পরে ঠাণ্ডা পানি ব্যবহার করা ভাল।

চুল ভাল রাখতে হলে নিয়মিত চুল ও স্ক্যাল্প পরিষ্কার রাখা বাঞ্ছণীয় । সঠিক উপায়ে চুলে তেল ও শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে।

চুলের ধরন অনুযায়ী শ্যাম্পু নির্বাচন করতে হবে। বাজারে বিভিন্ন চুলের উপযোগী ভিন্ন ভিন্ন শ্যাম্পু পাওয়া যায়। বেছে নিন আপনার উপযুক্ত শ্যাম্পু।

সপ্তাহে ২-৩ বার চুল ও স্ক্যাল্প এ তেল ম্যাসাজ করে সারারাত রাখুন, চুলের ধরন তৈলাক্ত হলে শ্যাম্পু করার ঘণ্টাখানেক আগে লাগালেই চলবে। এেেত্র বেছে নিতে পারেন জলপাই, নারিকেল, আমন্ড বা জোজবা তেল।

চুলের আগা ফাটার সমস্যা থাকলে প্রতিমাসেই ট্রিম করে নিতে ভুলবেন না, এতে চুলের স্বাভাবিক বৃদ্ধি বজায় থাকবে।

প্রতি রাতেই মোটা দাঁতের চিরুনি এবং প্যাডেল ব্রাশ দিয়ে ভাল মত চুল আচড়ে নিন। এতে মাথার ত্বকের রক্ত চলাচল বাড়বে। সেই সঙ্গে চুলও বেড়ে উঠবে দ্রুত।

আপনি চাইলে চুলের প্যাকও ব্যবহার করতে পারেন। এেেত্র তৈলাক্ত চুলে ডিমের সাদা অংশ, মেহেদি এবং আমলকির রস দিয়ে তৈরি করে নিতে পারেন প্যাক।

চুল শুষ্ক হলে ব্যবহার করুন ডিমের কুসুম, আমন্ড তেল, মধু ও গ্লিসারিন। সব উপকরণ এক সঙ্গে মেশান, পেস্ট এর মত করে লাগিয়ে রাখুন পুরো মাথায়। ৪০-৪৫ মিনিটের মত।  এই প্যাক সপ্তাহে একবার লাগানোই যথেষ্ট ।

সর্বোপরি পরিমিত ঘুম, নিয়মিত শরীরচর্চা, স্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রা এবং দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকাটাই সব কিছুর মূলমন্ত্র।

>