সোমবার , ৩০শে নভেম্বর, ২০২০ , ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ , ১৪ই রবিউস সানি, ১৪৪২

হোম > Uncategorized > ‘ক্রিকেটের ভাল পরিবেশ ফিরে আসুক’

‘ক্রিকেটের ভাল পরিবেশ ফিরে আসুক’

শেয়ার করুন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশের ক্রিকেটে হঠাৎ করেই ছন্দপতন। পরিবেশটা যেন আর ক্রিকেটীয় নেই। ফিক্সিং কেলেঙ্কারি, আকসু’র তদন্ত প্রতিবেদন, বিসিবি’র নির্বাচন, টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের ভেন্যু নিয়ে শঙ্কা-আশঙ্কা সবকিছু ক্রিকেটের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত হলেও এই সবই মাঠের বাইরের বিষয়। কিন্তু এই সব বিষয় মাঠের ক্রিকেটকে করছে প্রচণ্ড ভাবে প্রভাবিত। জাতীয় দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম নিজেও তা অনুভব করেন ভালভাবে। তাই এ থেকে যত দ্রুত সম্ভব বের হয়ে  আবারও ক্রিকেটের পরিবেশ ফিরিয়ে  আনা দরকার বলে মনে করেন তিনি। গতকাল জাতীয় দলের প্রধান কোচ শেন জার্গেনসেনের অধীনে আবারও শুরু হয়েছে কন্ডিশনিং ক্যাম্প। মিরপুরে সাহারা-বিসিবি জাতীয় ক্রিকেট একাডেমী মাঠে মুশফিক সাংবাদিকদের বলেন, ‘বর্তমান পরিস্থিতিতে মনসংযোগে কিছুটা ঘাটতি তো হচ্ছেই। তবে আমরা সামনে নিউজিল্যান্ড সিরিজকে সামনে রেখে এই সব আলোচনা থেকে নিজেদেরকে বাইরে রাখছি। তবে যেটা হচ্ছে আমি আশা করবো বিষয়টি শেষ করে দ্রুত যেন ক্রিকেটীয় পরিবেশ ফিরে আসে।’
ঈদের ছুটি শেষে ফিরেছেন জাতীয় দলের প্রধান কোচ। আর  ফিরেই শিষ্যদের নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। তবে কন্ডিশনিং এতদিন ক্যাম্পে তাদের ফিটনেসের সেশনটাই বেশি ছিল। তবে এবার স্কিলের প্রতি জোর দিয়েছেন কোচ। আর অধিনায়কও নিউজিল্যান্ড মিশনকে সামনে রেখে এই ক্যাম্প নিয়ে বলেন, ‘আমার সামনে খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি সিরিজ আছে। ঈদের আগেই আমরা এই লক্ষ্যে অনুশীলন শুরু করেছিলাম। তবে ঈদের আগে আমাদের কন্ডিশনিংটা বেশি হলেও এবার স্কিলের ওপর জোর দেয়া হচ্ছে। আমাদের হোম ওয়ার্কটা ওদের অনুপাতেই করা হচ্ছে। ওদের দলে তিনটা বাঁ-হাতি  পেসার রয়েছে, আমরা  সেভাবে   প্রস্তুতি  নেয়ার  চেষ্টা করছি। অনূর্ধ্ব-১৯ দলে কয়েকজন বাঁ-হাতি  পেসার রয়েছে আর ওরা দেশে ফিরলে ক্যাম্পে থাকবে। ওরা থাকলে প্রস্তুতিটাও আশা করি বেশ ভাল হবে।’
অন্যদিকে বিপিএল ম্যাচ পাতানো তদন্তে মো. আশরাফুলের সঙ্গে আরও কয়েকজন সতীর্থ অভিযুক্ত হওয়ায় ভীষণ হতাশ মুশফিক। তিনি বলেন, ‘সতীর্থরা এমন কিছুতে জড়িয়েছে ভাবলে খারাপ লাগে। আমরা হতাশ হয়েছি। আগে হয়তো অন্য  দেশে অনেক বড় তারকারা এসবে জড়িয়েছে, কিন্তু আমাদের দেশে এটাই প্রথম।’ তবে গোটা বিষয়টা তিনি ছেড়ে দিলেন আইসিসি ও বিসিবি’র উপর। তিনি বলেন, ‘তারা যা করেছেন এর ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আইসিসি, বিসিবি রয়েছে। এটা সবার জন্যই একটা শিক্ষা। বয়সভিত্তিক দল, একাডেমী দল  থেকে শুরু করে সবার এ থেকে অনেক কিছু  শেখার আছে।’
সামনেই ঘরের মাটিতে নিউজিল্যান্ড মিশন। শেষ সফরে নিজেদের ঘরের মাটিতে সিরিজে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে নিউজিল্যান্ডকে ৪-০ ব্যবধানে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। সেই সিরিজ ভালো খেলার অনুপ্রেরণা যোগালেও এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ সিরিজ আশা করছেন মুশফিক। আগে হারানোর সুখ স্মৃতি থাকলেও নিউজিল্যান্ডের বর্তমান পারফরমেন্সকে ছোট করে দেখছে না মুশফিক। তাই প্রতিপক্ষের শক্তি নিয়ে বলেন, ‘নিউজিল্যান্ড এই মুহূর্তে খুব ভালো দল। ইংল্যান্ডের মাটিতে ওরা ইংল্যান্ডকে হারিয়ে এসেছে। ওরা ভালো খেলছে আমরাও ভালো  খেলছি। আমি আশাবাদী খুব ভালো একটি সিরিজ হতে যাচ্ছে।’
‘এ’ দলের হয়ে জাতীয় দলের অনেক ক্রিকেটারই এখন রয়েছে ইংল্যান্ড সফরে। তবে টানা পাঁচ ম্যাচ হেরে তারা এখন রীতিমতো দিশাহারা। ‘এ’ দলে পারফরমেন্সের উপর নির্ভর করেই তাদের জন্য খোলা হবে জাতীয় দলের দরজা। তাই জাতীয় দল ছাড়াও মুশফিকের চিন্তায় আছে ‘এ’ দলও।  আর তাই মুশফিক কথা বলেছেন বাংলাদেশ ‘এ’ দলের ইংল্যান্ড সফর নিয়েও। কাউন্টি দলগুলোর কাছে টানা পাঁচটি একদিনের ম্যাচ হারলেও ইংল্যান্ড লায়ন্সের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজে ভালো কিছু আশা করছেন মুশফিক। তিনি বলেন, ‘এতটা হতাশাজনক হবে আশা করিনি। তবে ব্যক্তিগতভাবে অনেকে ভালো করছে। ইংল্যান্ড লায়ন্স শক্তিশালী দল, আশা করি ভালো সিরিজ হবে।’ এছাড়াও  বিপিএল নিয়ে অনেক সমালোচনার মধ্যেও মুশফিক এই ঘরোয়া টি-টুয়েন্টি টুর্নামেন্টের পক্ষেই। বিপিএলের পক্ষে তিনি যুক্তি দেখিয়ে বলেন, ‘আসলে এখান থেকেই তো আমাদের ভাল কিছু প্রাপ্তি ছিল। আমাদের ক্রিকেটাররা বেশ উপকৃত হয়েছে এখানে খেলে।’

>