সোমবার , ৩০শে নভেম্বর, ২০২০ , ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ , ১৪ই রবিউস সানি, ১৪৪২

হোম > Uncategorized > খালেদাকে নিষ্ঠুর হতে হবে

খালেদাকে নিষ্ঠুর হতে হবে

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে জিয়াউর রহমানের মতো কঠোর হতে বললেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

তিনি বলেছেন, ‘খালেদা জিয়াকে জিয়াউর রহমানের মতো কঠোর হতে হবে। তাহলে জিয়ার মতো খালেদা জিয়ার নামও ইতিহাসে আজন্ম লেখা থাকবে।’

শনিবার বিকেলে সেগুন বাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকারে অধীনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও নতুন ধারার রাজনীতির রূপকার: তারেক রহমান’ শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে ফিজিওথেরাপিস্ট অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (প্যাব) নামের একটি সংগঠন এ আলোচনার আয়োজন করে।

গয়েশ্বর বলেন, ‘নতুন ধারার সরকার গঠন ও কর্ম পরিকল্পনার বিষয়টি জনগণ ও দলীয় নেতাকর্মীদের কাছে পরিস্কার করতে হবে। এজন্য কর্মসূচি এবং নতুন ধারার লোকও লাগবে। তাহলে জনগণই সব দায়িত্ব গ্রহণ করবে।’

তিনি বলেন, ‘নতুন ধারার কথা বলে চমক সৃষ্টি করে লাভ হবে না। জনগণকে আলোর পথ দেখাতে হবে। বর্তমান রাজনৈতিক সঙ্কট থেকে মুক্তির পথ বের করতে হবে। আর না হলে কয়েক দিন ক্ষমতায় থাকা যাবে কিন্তু জনগণের কাছে যাওয়া যাবে না। তাহলে জনগণ আওয়ামী লীগের মতো বিএনপিকেও বিশ্বাস করবে না।’

এক এগারোর সময়ে বিশ্বাসঘাতকদের কঠোর সমালোচনা করে গয়েশ্বর রায় বলেন, ‘এক এগারোর সময়ে যারা বিশ্বাসঘাতকতা করেছে কৌশলগত কারণে তাদেরকে কিছু বলা হয়নি। কিন্তু এখন তাদের ক্ষমা করার সময় পার হয়ে গেছে। আওয়ামী লীগের চেয়ে চারগুণ বেশি নেতাকর্মী বিএনপিতে রয়েছে। তাই এখন সংখ্যাতত্ত্বের কথা না ভেবে দলে মেধার বিকাশ ঘটাতে হবে।’

খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘দলের দুঃসময়ে যারা বিশ্বাসঘাতকতা করেছে তাদেরকে পাশে বসিয়ে টিভিতে বক্তব্য দিলে জনগণ মানবে না। দলীয় নেতাকর্মীরা তা মেনে নেবে না।’

নতুন ধারার সরকার গঠনে দলকে ঢেলে সাজানোর আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে বুঝতে হবে তার আশপাশে যার আছে তারা সঠিক না বেঠিক। তিনি কাদেরকে দলে রাখবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘গত ৭ বছরে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের একটি দুর্নীতির অভিযোগও সরকার প্রমাণ করতে পারেনি। কিন্তু তারপরও খালেদা জিয়াকে বাড়ি ছাড়া হতে হয়েছে। কিন্তু এক এগারোতে যারা ষড়যন্ত্র করেছে তাদের বাড়িঘর ঠিক রয়েছে। এক এগারোর সময়ে সেই সব বিশ্বাসঘাতকরা যদি বিট্রে না করতো তাহলে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে ছুঁতেও পারতো না।’ এক এগারোর ষড়যন্ত্রকারীরা এখনো তৎপর বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তারেক রহমানের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘রাজনীতি কখনোই ষড়যন্ত্র মুক্ত ছিল না। ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করা রাজনীতিকদের দায়িত্ব। এ দায়িত্ব মোকাবেলায় ফেল করলে পরাজয় ঘটবে। তাকে পথ চিনতে হবে কেন তিনি হোচট খেয়েছেন।’

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘কথা দিয়ে কথা না রাখা রাজনীতিবিদদের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। তারা জনগণকে দেয়া ওয়াদা পূরণ করে না। তারা জনগণকে মিষ্টি কথা দিয়ে ভুলিয়ে রাখতে চায়।’

এক এগারোর ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় গুরুত্ব না দেয়া বিএনপির ব্যর্থতা বলেও উল্লেখ করেন তিনি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সভাপতি মোহাম্মদ মাহতাব উদ্দিন। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার উল্লাহ চৌধুরী, প্রেসক্লাব সভাপতি কামাল উদ্দিন সবুজ, বিএনপির স্বাস্থ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ডা. কাজী মাজহারুল ইসলাম দোলন, ড্যাবের সহ-সভাপতি ডা. শাহীন হাসান, ডার্মাটোলজিক্যাল সোসাইটির সহ-সভাপতি অধ্যাপক ডা. আকরাম উল্লাহ শিকদার প্রমুখ।

>