বৃহস্পতিবার , ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ , ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ , ১৭ই রবিউস সানি, ১৪৪২

হোম > প্রবাস > খুলছে লিবিয়ার শ্রমবাজার

খুলছে লিবিয়ার শ্রমবাজার

শেয়ার করুন

বাংলাভুমি২৪ ডেস্ক ॥ বাংলাদেশি কর্মীদের জন্য লিবিয়ার বন্ধ শ্রমবাজার আবার খুলে যাচ্ছে। তৎকালীন প্রেসিডেন্ট মুয়াম্মার গাদ্দাফির বিরুদ্ধে আন্দোলন চলাকালে দেশটি অস্থিতিশীল হয়ে উঠলে বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশি কর্মীকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। তারপর দেশটির স্থিতিশীলতা না ফেরায় বিদেশি কর্মী নিয়োগ বন্ধ থাকে। এখন লিবিয়া সরকার যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির অবকাঠামো পুনর্গঠন এবং সংস্কারের ল্েয বিদেশি শ্রমিক নিয়োগ করতে যাচ্ছে। লিবিয়ার একটি সরকারি প্রতিনিধি দল সম্প্রতি ঢাকা সফর করে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশি কর্মী নিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করে। এ কর্মী পাঠানোর প্রক্রিয়া নির্ধারণে বাংলাদেশের একটি সরকারি প্রতিনিধি দল শিগগিরই লিবিয়া সফরে যাচ্ছে।

সফরকালে লিবিয়ার প্রতিনিধি দলটি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে পৃথক বৈঠক করে। এসব বৈঠকে প্রাথমিক আলোচনার তথ্য মতে, মালয়েশিয়ায় সরকারি পর্যায়ে (জি টু জি) কর্মী পাঠানোর জন্য অনলাইনে যে লোক নিবন্ধন করা হয়েছে, সে ডাটাবেজ থেকে কর্মীদের লিবিয়ায় পাঠানো হবে। তবে এ কর্মীদের অবশ্য লিবিয়ায় সরকারি পর্যায়ে পাঠানো হবে না।

সরকারের নির্ধারিত বেসরকারি রিত্রুক্রটিং এজেন্সির মাধ্যমে পাঠানো হবে।

২০১০ সালে লিবিয়া থেকে ৩৭ হাজার বাংলাদেশি কর্মীকে ফিরিয়ে আনা হয়। লিবিয়ায় বর্তমানে ৩৫ হাজার বাংলাদেশি কর্মী রয়েছেন। তাদের মধ্যে যারা যুদ্ধের সময় ফেরেননি, তারা বৈধভাবেই সেখানে আছেন। এই বৈধ বাংলাদেশি কর্মীর সংখ্যা অর্ধেকেরও বেশি। অবশিষ্ট বাংলাদেশি কর্মীরা গোপনে অবৈধভাবে লিবিয়ায় প্রবেশ করেছেন।

লিবিয়ার প্রতিনিধি দলের সদস্যরা ঢাকায় তাদের দেশের দূতাবাসের ভিসা প্রদানের পদ্ধতি পরিদর্শন করেছেন। বৈঠকে লিবিয়ার প্রতিনিধি দলের সদস্যরা অভিযোগ করেন, সম্প্রতি উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশি জাল ভিসা নিয়ে লিবিয়ায় যান। লিবিয়া কর্তৃপ পরে বিমানবন্দর থেকে তাদের দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেয়। জাল ভিসা নিয়ে যেন কোনোভাবেই বাংলাদেশিরা লিবিয়ায় যেতে না পারে তার ব্যবস্থা করার জন্য প্রতিনিধি দল আহ্বান জানায়।

>