শুক্রবার , ২৩শে এপ্রিল, ২০২১ , ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ , ১০ই রমজান, ১৪৪২

হোম > শীর্ষ খবর > গাজীপুরে অলি গলিতে পেট্রোল বোমার কাঁচামাল বিক্রি

গাজীপুরে অলি গলিতে পেট্রোল বোমার কাঁচামাল বিক্রি

শেয়ার করুন

সাদিকুর রহমান
স্টাফ রিপোর্টার:
গাজীপুর জেলার বিভিন্ন স্থানে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে খোলা বাজারে অবৈধ জ্বালানী বিক্রয়। কোন প্রকার অগ্নি নিরাপত্তা ছাড়াই বড় বাজার থেকে শুরু করে মফস্বল এলাকায় মুদি দোকানেও বিক্রি হচ্ছে এইসব জ্বালানী। আইনি কোন বৈধতা না থাকলেও উচ্চ লাভের আশায় দোকানিরা ঝুকছেন অকটেন, পেট্রোলের মত ভয়াবহ দাহ্যের উন্মুক্ত বিক্রয়ে। চেনা অচেনা যে কেউ টাকা দিলেই তার হাতে তুলে দিচ্ছেন পেট্রোল বোমার প্রধান কাঁচামাল।
বাংলাদেশে বিভিন্ন সময়ে ঘটে যাওয়া সহিসংতার মাঝে অগ্নি সংযোগে হতাহতের সংখ্যা নেহাত কম নয়। শুধু ২০১৩ সালেই নির্বাচন সংক্রান্ত জটিলতা ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ইস্যুতে সহিংসতার ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছে পাঁচ শতাধিক মানুষ। এর বেশির ভাগ হামলাতেই পেট্রোল বোমা উপস্থিতি ছিলো উল্লেখ করার মত। যার প্রধান কাঁচামাল পেট্রোল ও অকটেন। যদিও এটি অতি মাত্রায় দাহ্য হওয়ায় খোলা বাজারে বিক্রি সম্পুর্ণ নিষিদ্ধ।
সরেজমিনে গাজীপুর জেলার সদর উপজেলার ভাওয়াল গড়, মির্জাপুর ও পিরুজালী এলাকা ঘুরে দেখা যায় বিশের অধিক দোকানে পেট্রোল, অকটেনসহ খোলা লুব্রিকেন্ট বিক্রয় হয়। একই দৃশ্য ছিলো শ্রীপুর উপজেলার শ্রীপুর থেকে বরমী যাওয়ার রাস্তায়ও। বিক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, তাদের নেই কোন অগ্নি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, নেই লাইসেন্স, এমন কি নেই ইউপি ট্রেড লাইসেন্সও। দু একটি দোকানে ডিজেল ও কেরোসিনের ডিলার লাইসেন্স থাকলেও, তারা জেনে বুঝেও অবৈধভাবে বিক্রি করছেন অকটেন ও পেট্রোলের মত অতি দাহ্য জ্বালানী। বাজার, স্কুল, মসজিদের পাশে, ব্যস্ত সড়কের পাশে প্লাস্টিকের বোতলে ভরে অতি দাহ্য এই জ্বালানী রাখা হয়েছে টেবিলে বা চেয়ারে।
অপরাধ করেও নেই কোন ভয়, যেন এক মগের মুল্লুক। অথচ যেকোন সময় সহিংসতা দেখা দিলে পেট্রোল ও অকটেনের এ সহজ লভ্যতা খুব সহয়েই প্রাণহানির ঘটনা দেখা দিতে পারে।
শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাসলিমা মোস্তারী ভাষ্য মতে, অকটেন ও পেট্রোল খোলা বাজারে বিক্রয় হয় এমন তথ্য তার কাছে নেই, তবে তিনি তথ্য দিলে ব্যবস্থা নেবেন।
একই বক্তব্য ছিলো গাজীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারও। তথ্য বা অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নিবেন।
দেশের প্রধান বিষ্ফোরক পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ বলেন, খোলা বাজারে পেট্রোল-অকটেন বিক্রি বৈধতার কোন পথ নেই, নিঃসন্দেহে এটি অবৈধ। এটি ভয়াবহ দুর্ঘটনার জন্ম দিতে পারে। এসব বিষয় নিয়ন্ত্রণে ভ্রাম্যমান আদালত দিয়ে অভিযান পরিচালনা করা জরুরি।

>