মঙ্গলবার , ২৬শে জানুয়ারি, ২০২১ , ১২ই মাঘ, ১৪২৭ , ১২ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২

হোম > সারাদেশ > গাজীপুর সিটিতে কুকুরের উপদ্রব

গাজীপুর সিটিতে কুকুরের উপদ্রব

শেয়ার করুন

জাহিদ হাসান ভূঁইয়া
স্টাফ রিপোর্টার ॥
গাজীপুর: বেওয়ারিশ কুকুরের উপদ্রবে অতিষ্ঠ গাজীপুর সিটিবাসী। ইদানিং গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন অলিগলিতে হরহামেশাই এসব বেওয়ারিশ কুকুরের অবাধ বিচরণ দেখা যাচ্ছে।

ভোর থেকে দেখা যায় কুকুরের উৎপাত। সংঘবদ্ধ কুকুর দলের চিৎকার-চেঁচামেচি আর ঘেউ ঘেউ শব্দে ফজরের নামাজ পড়াও দায় হয়ে পড়ে। তাছাড়া গভীর রাতে ঘুম ভেঙ্গে বিরক্ত অনুভব করেন অনেকে। কুকুরের বিশৃঙ্খল দৌড়াদৌড়ি প্রাতভ্রর্মণকারীদের হাঁটাহাঁটিতে বিঘ্ন ঘটায়। স্কুলগামী শিশু এবং নারীরা কুকুরের ভয়ে আতঙ্কগ্রস্ত থাকেন। অনেকে আবার কুকুরের কামড়ে জলাতঙ্কের মতো প্রাণঘাতি রোগে ভোগেন, অনেক সময় হতাহতও হতে হয়।

করোনা ভাইরাসের প্রকোপ শুরুর মুহূর্তে গাজীপুরের বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক, পারিবারিক অনুষ্ঠান কম হলেও বেড়ে চলছে কুকুরের উৎপাত। বর্তমানে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বেওয়ারিশ কুকুরের মাত্রাতিরিক্ত আধিপত্য বিস্তার ঘটে।

স্থানীয় এক সাংবাদিক বলেন, দীর্ঘদিন বন্ধ্যাত্বকরণ কর্মসূচী হাতে না নেয়ায় বেওয়ারিশ কুকুরের সংখ্যা বেড়ে চলেছে বলে আমি মনে করি।

সিটি কর্পোরেশনের পাশে সার্কেল নেটওয়ার্ক গাজীপুর অফিসের ম্যানেজার আব্দুল মজিদ হাওলাদার বলেন, আমি রাতে অফিস থেকে বের হওয়ার সময় কয়েকটি কুকুরের হামলার শিকার হই। এরা আমার পায়ে কয়েকটি কামড় বসায়, জিন্স প্যান্ট পরনে থাকায় সে যাত্রায় কিছুটা পরিত্রাণ পেয়েছি।

স্থানীয় হোটেল ব্যবসায়ী মোঃ হিরা খান জানান, অনেক সময় দোকান বন্ধ করতে করতে গভীর রাত হয়ে যায় তখন কুকুর আতঙ্কে বাসায় যেতে ভয় করে। অনেক সময় চারদিক থেকে দলবদ্ধ কুকুর ঘেউ ঘেউ শব্দে ঘিরে ধরে।

বাজার ব্যবসায়ী সুমন বলেন, বাজার করে ফিরতে গেলে, হাতে ব্যাগ থাকে প্রায়ই সংঘবদ্ধ কুকুর ঘেউ ঘেউ করে। অনেক সময় বাসায় ডুকতে গেলেও আশেপাশের কুকুরের কারণে প্রবেশে চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়ায়।

শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্র জানায়, প্রায় দিনই কুকুরের কামড়ানো একাধিক ব্যক্তি চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে আসেন।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের বর্জ্য ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের সুপারভাইজার মোঃ মাহমুদুল হাসান মনির বলেন, যখন কুকুর নিধন কার্যক্রম চালু ছিল। তখন আমরা কুকুর নিধন করেছি, বর্তমানে এটা বন্ধ রয়েছে।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা: মোঃ রহমত উল্লাহ্ বলেন, হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা থাকায় আমরা কুকুর নিধন বন্ধ রাখছি। আইনের বাইরে গিয়ে এ কার্যক্রম পরিচালনা করার সুযোগ নেই।

>