সোমবার , ১লা মার্চ, ২০২১ , ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ , ১৬ই রজব, ১৪৪২

হোম > Uncategorized > ঘুরে দাঁড়ালো দক্ষিণ আফ্রিকা

ঘুরে দাঁড়ালো দক্ষিণ আফ্রিকা

শেয়ার করুন

স্পোর্টস ডেস্ক ॥ ডেভিড মিলারের ঝড়োগতির দুর্দান্ত ব্যাটিং আর বল হাতে লোনওয়াবে সতসবের মাত্র ২২ রানে চার উইকেট দখলের কৃতিত্বে সিরিজ ঘুরে দাঁড়িয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। শ্রীলঙ্কার পালেকেল্লে ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে বৃহস্পতিবার স্বাগতিকদের তারা হারিয়েছে ৫৬ রানে। শ্রীলঙ্কার ব্যাটসম্যান থিসারা পেরেরার ১ ওভারে ৩৫ রান তোলার রেকর্ড এদিন ব্যর্থ হয়েছে। এতে করে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকা ২-১-ব্যবধান করতে পেরেছে।
বৃহস্পতিবার টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে মাত্র ২২৩ রানের পুঁজি পায় দক্ষিণ আফ্রিকা।
হাঁটুর ইনজুরির কারণে তৃতীয় ম্যাচে মাঠে নামতে পারেননি হাশিম আমলা। এই তারকা ব্যাটসম্যানের অভাবটা হাড়ে হাড়ে টের পায় প্রোটিয়ারা। ১০০ রানের মধ্যে পাঁচ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রথম পাঁচ উইকেটের মধ্যে জেপি ডুমিনি সর্বোচ্চ ২৩ রান করেন। প্রাথমিক বিপর্যয় সামলে ওঠার কাজটা সারতে চেয়েছিলেন অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স। ওই পথে তিনি বেশ ভালভাবে এগোলেও ৪৭ রানের মাথায় তিনি সাজঘরের পথ ধরেন। তবে এরপর ডেভিড মিলার নিজের কাঁধে তুলে নেন ইনিংস মেরামতের দায়িত্ব। হাঁকান তার ক্যারিয়ারের পঞ্চম ওডিআই হাফ সেঞ্চুরি। ৪টি চার ও ৫টি ছক্কার সাহায্যে তিনি করেনর ৭২ বলে অপরাজিত ৮৫ রান। শুধু তাই নয়, ধ্বংসস্তূপের মধ্যে দাঁড়িয়ে মিলারের খেলা এই ইনিংসটা চলতি সিরিজে কোন প্রোটিয়া কোন ব্যাটসম্যানের প্রথম অর্ধশত। অষ্টম উইকেটে রায়ান ম্যাকলারেনের সঙ্গে ডেভিড মিলার ৬৯ রানের জুটি গড়ে সম্মানজনক স্কোর দাঁড় করাতে সক্ষম হয় তারা। এই এই পার্টনারশিপে ম্যাকলরেনের অবদান মাত্র ১৪ রান। সফরকারী দলে হাশিম আমলা, অ্যারন ফাঙ্গিসো ও ক্রিস মরিসের জায়গায় খেলেন কুইন্টন ডি কক, ফারহান বেহার্ডিয়ান ও লনওয়াবো সতসোবে।
প্রোটিয়াদের তোলা ২২৩ রানের সংগ্রহ তাড়া করতে নেমে লনওয়াবো সতসবের বোলিং তোপে শ্রীলঙ্কানরা ২৭.৩ ওভারে ৮১ রানের মধ্যে হারায় টপ অর্ডার এবং মিডল অর্ডারের ছয়জন ব্যাটসম্যানকে। অবশ্য মাঝের একটা সময়ে থিসারা পেরেরার ব্যাট আশা জাগিয়েছিল। রবিন পিটারসনের করা ইনিংসের ৩২ তম ওভারে পেরেরা পাঁচটি ছক্কা ও একটি বাউন্ডারি হাঁকালে কিছুটা আশা জেগে ওঠে লঙ্কানদের মধ্যে। এর মধ্যে পেরেরার একটি ক্যাচ ফেলেন প্রোটিয়া ফিল্ডাররা। রান আউটরে হাত থেকেও বেঁচে যান তিনি। কিন্তু ভাগ্য বারবার লংকানদের সহায়তা করেনি। ৪৯ বলে পাঁচ বাউন্ডারি এবং পাঁচ ছক্কায় পেরেরার ৬৫ রানের ইনিংসটায় ইতি টানেন ফারহান বেহার্ডিন। পেরেরার আউটে শঙ্কা কাটে দক্ষিণ আফ্রিকার। শেষ পর্যন্ত ৪৩.২ ওভারে ১৬৭ রানেই গুটিয়ে যায় লঙ্কানরা। লঙ্কান ব্যাটসম্যান উপুল থারাঙ্গা (৫), তিলকারতেœ দিলশান (৬) ও নিষিদ্ধ কাটিয়ে ফেরা অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস (১৪) কেউই নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। আর ডেঞ্জারম্যান কুমার সাঙ্গাকারা এদিন রানের খাতাই খুলতে পারেননি। দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার সতসবে চারটি আর ফারহান বেহার্ডিন নেন তিনটি উইকেট।  স্বাগতিক দলে শামিন্দা ইরাংগা, লাহিরু থিরিমানে এবং জিহান মুবারকের জায়গায় দেখা যায় অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস, অজন্থা মেন্ডিস এবং অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা ব্যাটসম্যান অ্যাঞ্জেলো পেরেরাকে। সিরিজের তৃতীয় ম্যাচ আজ পাল্লেকেলেতে।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
দ.আফ্রিকা: ২২৩/৭ (কক ২০, ডুমিনি ২৩, ভিলিয়ার্স ৪৭, মিলার ৮৫, মেন্ডিস ৩/৩৫, পেরেরা ২/৫১, মালিঙ্গা ১/৫৭)
শ্রীলঙ্কা: ১৬৭ (জয়াবর্ধনে ২৪, চণ্ডিমল ২৯, পেরেরা ৬৫, হেরাথ ১২, সতসবে ৪/২২, ম্যাকলারেন ১/১৮, রবিন ১/৫১, ডুমিনি ১/২৩, বেহার্ডিন ৩/১৯)
ফল: দ.আফ্রিকা ৫৬ রানে জয়ী।
ম্যাচ সেরা: ডেভিড মিলার।
সিরিজ: পাঁচ ম্যাচের সিরিজে শ্রীলঙ্কা ২-১।

>