শুক্রবার , ২৩শে এপ্রিল, ২০২১ , ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ , ১০ই রমজান, ১৪৪২

হোম > Uncategorized > জাতিসংঘ পুরস্কার পেলেন নীলফামারীর কেশব

জাতিসংঘ পুরস্কার পেলেন নীলফামারীর কেশব

শেয়ার করুন

নীলফামারী প্রতিনিধি ॥ নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার শিশু সংগঠক কেশব চন্দ্র রায় (১৮) জাতিসংঘের সম্মানজনক ইয়ুথ কারিজ অ্যাওয়ার্ড ফর এডুকেশন পুরস্কার পেয়েছেন। ১২ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অবস্থিত জাতিসংঘ ভবনে মালালা দিবসের অনুষ্ঠানে জাতিসংঘের শিক্ষাবিষয়ক বিশেষ দূত ও সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী গর্ডন ব্রাউনের হাত থেকে কেশবের পক্ষে প্লান ইন্টারন্যাশনাল ওই পুরস্কার গ্রহণ করে।

প্লান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ নীলফামারীর প্রোগ্রাম ইউনিট জলঢাকার কমিউনিকেশন কো-অর্ডিনেটর আসাদুজ্জামান রাসেল বলেন, নিজ এলাকায় বাল্যবিবাহ বন্ধে সচেতনতা সৃষ্টি এবং ঝরে পড়া শিশুদের বিদ্যালয়মুখী করার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখায় কেশবকে এ পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। এ পুরস্কার পাওয়ায় গর্ডন ব্রাউনের দেওয়া অভিনন্দনপত্র কেশবের হাতে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। চিঠিতে কেশবকে বিশ্বের যুব সমাজের নেতা ও রোল মডেল হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে বলে জানান আসাদুজ্জামান।

জলঢাকার কৈমারি ইউনিয়নের বিন্যাকুড়ি গ্রামের ওজিন্দ্র বর্মণের ছেলে কেশব চন্দ্র রায় বলেন, ‘সপ্তম শ্রেণীতে ওঠার পর পারিবারিক অসচ্ছলতার কারণে লেখাপড়া বন্ধ করে বিন্যাকুড়ি বাজারে একটি ভাঙারির দোকানে কাজ নিই। প্রায় এক বছর পর একদিন আমার প্রতিবেশী বিভূতিভূষণ আমাকে আবারও পড়াশোনায় ফিরিয়ে আনতে উৎসাহিত করেন। আমাকে স্কুলে ভর্তি করে দিয়ে সেখানে শিশু দলের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন। আস্তে আস্তে আমি ওই দলের সক্রিয় সদস্য হয়ে পড়ি। আমি এখন জলঢাকা উপজেলা শিশু ফোরামের সভাপতি ও জাতীয় শিশু টাস্কফোর্সের সদস্য।’

কেশবের দাবি, শিশু দলের সদস্যদের নিয়ে তিনি তাঁর এলাকার প্রায় ২৫টি বাল্যবিবাহ ঠেকিয়েছেন এবং প্রায় ৫০টি ঝরে পড়া শিশুকে স্কুলমুখী করতে সক্ষম হয়েছেন। কেশব ২০১২ সালে শ্রীলঙ্কায় শিশু সমাবেশে এবং ২০১৩ সালে ব্যাংককে শিশু সুরক্ষা প্রশিক্ষণে অংশ নেন। বর্তমানে তিনি জলঢাকা বিএম কলেজে উচ্চমাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।

>