বুধবার , ২০শে জানুয়ারি, ২০২১ , ৬ই মাঘ, ১৪২৭ , ৬ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২

হোম > জাতীয় > ডিজিটাল কমার্স সাম্যভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখছে

ডিজিটাল কমার্স সাম্যভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখছে

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
ডিজিটাল কমার্স শহর ও গ্রামের মধ্যে ভেদাভেদ দূর করে একটি সাম্যভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখছে বলে মন্তব্য করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বর) রাতে ঢাকায় বেটার বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন ব্রান্ডিং বাংলাদেশ আয়োজিত ডিজিটাল কমার্স বিষয়ক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন। বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, ‘ডিজিটাল কমার্স এখন জাতীয় জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে। এটি এখন আর শখের কাজ নয়। ডিজিটাল কমার্স শহর ও গ্রামের মধ্যে ভেদাভেদ দূর করে একটি সাম্যভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখছে। নারীরা ডিজিটাল কমার্সে ব্যাপকভাবে এগিয়ে আসায় নারীর ক্ষমতায়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে।’

ডিজিটাল কমার্সের সফলতার জন্য ডাকঘরের বিশাল অবকাঠামো ও দেশব্যাপী বিস্তৃত নেটওয়ার্ক সক্ষম করে গড়ে তোলা হচ্ছে উল্লেখ করে মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে গ্রামীণ ডাকঘরের জরাজীর্ণ অবকাঠামো সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে।’

ডিজিটাল কমার্সের জন্য ক্যাশ অন ডেলিভারি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘এক্ষেত্রে একটি ডিজিটাল প্লাটফর্মসহ ডিজিটাল কমার্স সম্প্রসারণের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সংশ্লিষ্টদের এক্ষেত্রে যথাযথ ভূমিকা গ্রহণে এগিয়ে আসতে হবে।’

এক্ষেত্রে বিদ্যমান চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় কিছু পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, ‘ব্যবসা-বাণিজ্য যে হারে ডিজিটাল হচ্ছে সেই প্রয়োজনে নীতিমালা, বিধি-বিধান অপরিহার্য।’

বেটার বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন কর্মকর্তা মাসুদ খানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হাফিজুর রহমান, দারাজ, বিকাশ ও নগদের প্রতিনিধিরা আলোচনায় অংশ নেন।

বক্তারা বলেন, ‘১০ বছর আগে ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচি শুরু না হলে করোনাকালে জীবন যাত্রা ব্যবসা-বাণিজ্য অচল হয়ে যেতো। ডিজিটাল বাংলাদেশ মানুষের জীবন যাত্রা সহজ করেছে।’

>