শনিবার , ১৬ই জানুয়ারি, ২০২১ , ২রা মাঘ, ১৪২৭ , ২রা জমাদিউস সানি, ১৪৪২

হোম > সারাদেশ > ডিবি পরিচয়ে তুলে নেয়ার পর হাত-পা বাঁধা অবস্থায় শ্মশানে হাফেজ সিরাজুল

ডিবি পরিচয়ে তুলে নেয়ার পর হাত-পা বাঁধা অবস্থায় শ্মশানে হাফেজ সিরাজুল

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
বগুড়ার নন্দীগ্রাম থানা পুলিশ শনিবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার পূর্ব কুচাইগাড়ি শ্মশান থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় হাফেজ সিরাজুল ইসলাম (২৫) নামে এক যুবককে উদ্ধার করেছে।

তিনি দাবি করছেন, ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তাকে শহরের কানুচগাড়ি এলাকা থেকে অপহরণ করা হয়েছে।

রোববার দুপুরে নন্দীগ্রাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুর রশিদ সরকার বলেছেন, এটা ওই যুবকের সাজানো ঘটনা। এর কারণ উদঘাটনে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পুলিশ ও স্বজনরা জানান, হাফেজ সিরাজুল ইসলাম বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার শালিখা পশ্চিমপাড়ার বাচ্চু বেপারির পুত্র। তিনি বগুড়া শহরের কানুচগাড়ি এলাকায় ফাতেমা ফিজিওথেরাপি সেন্টারে ম্যানেজার পদে কর্মরত। শনিবার বিকাল ৪টার দিকে তিনি কর্মস্থল থেকে বের হন। এ সময় অজ্ঞাতপরিচয় দুই ব্যক্তি নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তাকে আটকের পর একটি সিএনজি অটোরিকশায় তুলে নেয়।

শাজাহানপুর উপজেলার শাকপালা এলাকায় বগুড়া-নাটোর মহাসড়কে নামিয়ে তাকে একটি মোটরসাইকেলে তোলা হয়। এরপর তাকে নন্দীগ্রাম উপজেলার পূর্ব কুচাইগাড়ি শ্মশান ঘাটে নিয়ে হাত-পা বেঁধে হত্যার চেষ্টা করা হয়। তখন তার চিৎকারে পথচারীরা ছুটে এলে ওই দুই ব্যক্তি তাকে ফেলে পালিয়ে যায়। পরে খবর পেয়ে নন্দীগ্রাম থানা পুলিশ সিরাজুলকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

নন্দীগ্রাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুর রশিদ সরকার রোববার দুপুরে জানান, জিজ্ঞাসাবাদে ওই যুবক অসংলগ্ন তথ্য দিচ্ছেন। এতে ধারণা করা হচ্ছে, অপহরণের ঘটনা সাজানো। তিনি কাউকে ফাঁসাতে বা অন্য কোনো কারণে অপহরণের নাটক সাজিয়েছেন। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রয়েছে। শিগগিরই এ অপহরণের প্রকৃত ঘটনা জানা সম্ভব হবে। মামলা হয়নি।

>