মঙ্গলবার , ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ , ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ , ৮ই রবিউস সানি, ১৪৪২

হোম > বিনোদন > নির্মাতাদের পাওলি-প্রীতি!

নির্মাতাদের পাওলি-প্রীতি!

শেয়ার করুন

বিনোদন ডেস্ক ॥ কলকাতার অভিনেত্রী পাওলি দাম ইদানীং সংবাদ আর আলোচনায় নিয়মিতই আসছেন। মূলত, বিক্রম ভাটের ‘হেট স্টোরি’ ছবির মুক্তির পর থেকেই পাওলিকে নিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে আলোচনার ঝড় উঠেছে। এর প্রধান কারণ ছবিতে তাঁর খোলামেলা অভিনয়। এ দেশের নির্মাতাদের পাওলি-প্রীতিও ইদানীং চোখে পড়ার মতো বিষয়।
অনেকের ধারণা ছিল, ‘হেট স্টোরি’ ছবির পর বলিউডে নিজের আসনটা পাকাপোক্ত করে ফেলতে পারবেন পাওলি; কিন্তু তা আর হয়নি। তাই বলে কি বসে আছেন তিনি? না, তেমনটিও নয়। পাওলি আপন গতিতে কাজ করে চলেছেন। ‘হেট স্টোরি’ ছবির পর বলিউডে ‘অঙ্কুর অরোরা মেডিকেল কেস’ নামের একটি ছবির কাজ করেছেন। ছবিটি এরই মধ্যে মুক্তিও পেয়েছে; কিন্তু প্রত্যাশা অনুযায়ী সাফল্য পায়নি। সম্প্রতি পাওলি বলিউডের আরেকটি ছবিতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। নতুন চুক্তি হওয়া ছবিটির নাম ‘ইয়ারা সিলি সিলি’।
কলকাতা কিংবা বলিউড, ছবিতে ব্যস্ততার কারণে পাওলিকে নিয়ে বাংলাদেশি কিছু নির্মাতাও বেশ আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। তাঁদের মতে, পাওলির মতো একজন অভিনয়শিল্পী তাঁদের ছবির জন্য বড়ই প্রয়োজন। এরই মধ্যে কয়েকজন নির্মাতা বিভিন্ন সময়ে পাওলির সঙ্গে কয়েক দফা আলোচনা সেরে ফেলেছেন বলেও খবর পাওয়া গেছে।
পাওলিকে ছবিতে অভিনয়ে নেওয়ার বিষয়ে ঢাকার ‘সত্তা’ ছবির পরিচালক হাসিবুর রেজা কল্লোল বলেন, ‘প্রথম দিকে বাংলাদেশের অনেক অভিনয়শিল্পীর সঙ্গেই “সত্তা” ছবিতে অভিনয়ের বিষয়ে আলোচনা করি। কিন্তু তাঁরা সবাই গল্পটি পছন্দ করলেও শেষ পর্যন্ত নিজেদের ইমেজের দোহাই দিয়ে এ ছবিতে অভিনয় করতে রাজি হননি। এরপর খুঁজতে থাকি কাকে নিয়ে ছবির কাজ শুরু করা যায়। ভাবতে ভাবতে পাওলি দামের কথাই মনে পড়ে। গল্পেও পাওলির মতো অভিনয়শিল্পী বেশ মানানসই। তারপর মুঠোফোনে কথা বলে পাওলির সঙ্গে মুম্বাইয়ে দেখাও করি। পাওলি নিজেও গল্পটির বেশ প্রশংসা করেন। কাজ করতেও আগ্রহ দেখান। সম্প্রতি আবার তাঁর সঙ্গে কথা হয়েছে। ঈদের আগেই কলকাতায় গিয়ে শুটিং শিডিউলটা ঠিক করে নিতে পারব বলে আশা করছি।’
পরিচালক অনন্য মামুনও তাঁর নতুন ছবির জন্য এরই মধ্যে পাওলি দামের সঙ্গে আলোচনা সেরে ফেলেছেন। মামুন বলেন, ‘আমার নতুন ছবিটি যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হবে। তা ছাড়া, আমার ছবির যে গল্প, তাতে পাওলি দামের মতো শক্তিশালী ও সাহসী অভিনয়শিল্পীর প্রয়োজন। তবে আমি আমাদের দেশের কোনো অভিনয়শিল্পীকে খাটো করে দেখছি না। আমার কাছে মনে হয়েছে, আমার ছবিটির গল্পের জন্য যে ধরনের সাহসী অভিনয়শিল্পীর দরকার, তা বাংলাদেশে নেই।’
পাওলি দামকে নিয়ে ‘দাবাড়ু’ নামের একটি ছবি নির্মাণের পরিকল্পনা করেছেন নির্মাতা শামীম আহমেদ। বিষয়টি নিয়ে পাওলির সঙ্গে তাঁর আলাপ-আলোচনাও হয়েছে। ছবিতে পাওলির বিপরীতে মাজনুন মিজানের অভিনয় করার কথা রয়েছে। জানা গেছে, আগামী অক্টোবরে ‘দাবাড়ু’ ছবির শুটিং শুরু হবে।
তাঁর প্রতি বাংলাদেশের নির্মাতাদের আগ্রহ দেখে পাওলি নিজেও বেশ খুশি। বিষয়টি তিনি বেশ ইতিবাচকভাবেই দেখছেন ।পাওলি বলেন, ‘বাংলাদেশের ছবিতে কাজ করতে আমি সব সময়ই আগ্রহী। এরই মধ্যে কয়েকজন নির্মাতা আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। অনেকগুলো গল্প ভালো লেগেছে। কিন্তু কিছু েেত্র বাজেট নিয়ে সমস্যা হচ্ছে। তবে আমি আশাবাদী, খুব শিগগির হয়তো বাংলাদেশি কোনো নির্মাতার ছবিতে অভিনয় করতে পারব।’
সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে পাওলি দাম অভিনীত ও দেবারতি গুহ পরিচালিত ‘হইচই’ ছবিটি। ছবিটি নিয়ে পাওলি বলেন, ‘এখানে আমার চরিত্রটি একজন থিয়েটার-পরিচালকের। একটা সময় আমি চাই নিজের একটা দল গড়তে। একদিন দল ভেঙে বেরিয়ে নিজের একটা দলও গড়ি। নাম দিই “হইচই”। আর এই দলটা নিয়েই যত হইচই।’
মুম্বাই থেকে এ সপ্তাহে কলকাতায় ফিরবেন পাওলি। এসেই দুটি বাংলা ছবির কাজ শুরু করবেন বলে জানান তিনি। ছবি দুটির পরিচালক হলেন সুব্রত সেন ও অভিজিৎ গুহ। পাওলি বলেন, ‘ছবির কাজের জন্য আমাকে এখন নিয়মিতই কলকাতা ও মুম্বাইয়ে আসা-যাওয়ার মধ্যে থাকতে হয়।’

>