শনিবার , ৩১শে জুলাই, ২০২১ , ১৬ই শ্রাবণ, ১৪২৮ , ২০শে জিলহজ, ১৪৪২

হোম > শীর্ষ খবর > পুত্রকে কোদাল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে ঘাতক পিতা

পুত্রকে কোদাল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে ঘাতক পিতা

শেয়ার করুন

সাদিকুর রহমান
স্টাফ রিপোর্টার:
গাজীপুর: বহুল আলোচিত মাদ্রাসা ছাত্র বিপ্লব আকন্দ (১৪) হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন এবং ঘাতক বাবা ও সহযোগী আসামীকে আটক করেছে পিবিআই গাজীপুর। গতকাল (শুক্রবার) সকালে পিবিআই গাজীপুরের অফিশিয়াল ফেসবুক পেইজে রহস্য উদঘাটনের ব্যাপারটি প্রকাশ করেন।
সন্তানের কাছে সবচেয়ে বিশ্বস্ত নাম হচ্ছে বাবা, হত্যার আসামি হিসেবে বাবাকে ঘাতক চিহ্নিত করা যথেষ্ট কষ্ট সাধ্য কাজ, জয়দেবপুর থানায় বিগত ১২ মার্চ’২০২১, ৩০২/৩৪ ধারায় অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের করার পর, জয়দেবপুর থানা পুলিশ দীর্ঘ একমাস তদন্ত করেও কোন রহস্য উদঘাটন করতে না পারায়, পুলিশ হেডকোয়ার্টার এর নির্দেশে মামলাটি পিবিআই গাজীপুরকে অর্পণ করা হয়।
পিবিআই ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার, বিপিএম (বার), পিপিএম এর সঠিক তত্ত¡াবধান ও দিক নির্দেশনায় পিবিআই গাজীপুর ইউনিট ইনচার্জ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান এর সার্বিক সহযোগিতায় মামলাটি তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক মাহমুদুল হাসান মামলাটি তদন্ত করেন।
মামলা ঘটনার সাথে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত আসামী (বিপ্লবের পিতা) ১। বাবুল হোসেন আকন্দ (৪২), পিতা-মৃত আমজাদ হোসেন আকন্দ, ০৯/০৬/২০২১ ইং তারিখ রাত ০৩.৩০ ঘটিকার সময় এবং আসামী ২। এমদাদুল (৩৫), পিতা-মৃত হাবিবুর রহমানকে ১০/০৬/২০২১ ইং তারিখ ভোর ০৫.২০ ঘটিকার সময় গাজীপুর জেলার পিরুজালী এলাকা থেকে অভিযান পরিচালনা করে গ্রেফতার করা হয়েছে।
এই বিষয়ে পিবিআই গাজীপুর জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান বলেন, মামলার বাদীনি তার স্বামীর প্রথম স্ত্রী। আনুমানিক ১১/১২ বছর আগে আসামী বাবুল তার আপন ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে ফুসলিয়ে দ্বিতীয় বিবাহ করে এবং ছোট স্ত্রীর ০২ মেয়েকে নিয়ে নিজের গ্রামে আলাদা বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করত। মূলত পারিবারিক কলহের জের ধরে ঘটনার দিন আসামী বাবুল কোদাল দিয়ে ভিকটিমের গলা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে নিজের ঔরসজাত সন্তানকে নির্মমভাবে হত্যা করে। গ্রেফতারকৃত আসামী এমদাদ এর দেখানো মতে অদ্য ১০/০৬/২০২১ তারিখ তার নিজ বাড়ী হতে হত্যাকান্ডের সময় ব্যবহৃত কোদালটি উদ্ধার করা হয়।
অপরদিকে, উক্ত পোস্টে হত্যার পুরো ঘটনার বর্ণনা দেওয়া হয়েছে এবং সেখানে বলা হয়েছে, “ভিকটিম এর শরীর স্বাস্থ্য ভালো থাকায় আসামী এমদাদ ভিকটিমকে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী সেভেন আপ এর সাথে নেশা জাতীয় ঔষধ মিশিয়ে খাওয়ায়।”

>