শনিবার , ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ , ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ , ১২ই রবিউস সানি, ১৪৪২

হোম > আন্তর্জাতিক > পুত্রসন্তানের আশায় ৬ বছরের মেয়েকে খুন

পুত্রসন্তানের আশায় ৬ বছরের মেয়েকে খুন

শেয়ার করুন

অনলাইন ডেস্ক ॥
কুসংস্কারে বিশ্বাস করে পুত্রসন্তানের আশায় ভারতের ঝাড়খণ্ডে ছয় বছর বয়সের এক কন্যা শিশুকে খুন করেছে তার পিতা। এক ওঝার পরামর্শে পুত্রসন্তান পাওয়া যাবে এমন বিশ্বাসে তিনি তার নিজের মেয়েকে খুন করেন। খবর ভারতীয় গণমাধ্যমের।

জানা যায়, ভারতের ঝাড়খণ্ডের রাঁচি শহরের লোহারডাঙার সুমন নেগাসিয়া (২৬) পেশায় শ্রমিক। তিনি পুত্র সন্তান লাভের আশায় এক ওঝার সংস্পর্শে আসেন। সেই ওঝা তাকে পরামর্শ দেন, কন্যা সন্তানকে হত্যা করলে তিনি পুত্রসন্তানের অধিকারী হবেন। অন্ধ বিশ্বাস করে ওঝার পরামর্শে সে তার আপন মেয়েকে খুন করেন। সুমনের স্ত্রী বাপের বাড়িতে থাকায় তাকে বাধা দেয়ার মতো কেউ ছিল না।

এই ঘটনায় পুলিশ ইতিমধ্যে সুমনকে গ্রেফতার করেছে। শিশুটির লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে প্রতিবেদন থেকে জানা যায়। ওঝাকে ধরতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে বলেও পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

ভারতে কুসংস্কার বা অন্ধ বিশ্বাসের কারণে বলি নতুন নয়। এর আগেও এমন ঘটনা ঘটেছে। প্রতিবেদন বলছে, কিছুদিন আগে করোনা রুখতে এক ব্যক্তিকে বলি দেয়া হয় ওডিশার এক মন্দিরে।

কটকের বন্ধা মা বুধা ব্রাহ্মণী দেবী মন্দিরে সানসারি ওঝা নামের এক ব্যক্তি বলি দেয় স্থানীয় এক যুবককে। এরপর নিজেই পুলিশের কাছে গিয়ে নিজের অপরাধের স্বীকার করেন। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, ওই ব্যক্তি স্থানীয় মন্দিরের পূজারী। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে হলে নরবলি দিতে হবে এই বিশ্বাস থেকেই স্থানীয় সরোজ কুমার প্রধান নামের এক ব্যক্তির গলা কেটে হত্যা করেন।

পুলিশকে অভিযুক্ত জানায়, নরবলি নিয়ে তার ও সরোজের মধ্যে তর্কাতর্কি হওয়ায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে তিনি তাকে হত্যা করেন বলে প্রতিবেদনে জানা যায়।

>