রবিবার , ২৯শে নভেম্বর, ২০২০ , ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ , ১৩ই রবিউস সানি, ১৪৪২

হোম > গ্যালারীর খবর > পোশাক খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় স্বাধীন কমিশন গঠন প্রয়োজন

পোশাক খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় স্বাধীন কমিশন গঠন প্রয়োজন

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ পোশাকশিল্পসহ দেশের সামগ্রিক সুশাসনের অভাবে রানা প্লাজায় ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার পর থেকেই কর্মপরিবেশ উন্নয়নসহ তিগ্রস্তদের পুনর্বাসনে একের পর এক প্রতিশ্রুতি আসছে। কিন্তু তা বাস্তবায়নে ধীরগতি ল করা গেছে। তাই বিভিন্ন প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন পরিস্থিতি পর্যবেণে একটি স্বাধীন কমিশন গঠন করা প্রয়োজন। শনিবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তারা এমন মতামত তুলে ধরেন।

‘রানা প্লাজা দুর্ঘটনার ১০০ দিন: প্রতিশ্রুতি ও বাস্তবায়ন পরিস্থিতি’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী জিএম কাদের। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। সিপিডির চেয়ারম্যান রেহমান সোবহানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সিপিডির সম্মানিত ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য। এছাড়া সেমিনারের সহ-আয়োজক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সিপিডির প থেকে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অতিরিক্ত রিসার্চ ফেলো খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম। তার উপস্থাপনায় রানা প্লাজা ধসের পর সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান কী পরিমাণ প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল এবং তার বাস্তবায়নের বর্তমান পরিস্থিতির চিত্র বেরিয়ে আসে।

দেশের সুশীল সমাজ এ উদ্যোগে এগিয়ে আসবে বলে উল্লেখ করে প্রবন্ধে বলা হয়, স্বাধীন কমিটি হতাহতদের জন্য খাতসংশ্লিষ্টদের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নকে ত্বরান্বিত করবে। ভবনধসে দোষীদের ওপর আইন প্রয়োগে উদ্যোগ নেবে এবং কর্মপরিবেশের নিরাপত্তা জোরদারে কাজ করবে। সর্বোপরি খাত ও শ্রমিকদের দীর্ঘমেয়াদি উন্নয়নে দীর্ঘমেয়াদি পর্যবেণও অব্যাহত রাখবে।

বাণিজ্যমন্ত্রী জিএম কাদের বলেন, দেশের সব সমস্যার মূল সমস্যা সুশাসন। সুশাসন নেই বলেই বিভিন্ন েেত্র সমস্যা তৈরি হচ্ছে। সমন্বিত কমিশন গঠনের বিষয়ে তিনি বলেন, রানা প্লাজার সমস্যাগুলো সমাধানে সরকার চেষ্টা করে যাচ্ছে। আর এসব সমস্যা সমাধানে কমিশন গঠনের জন্য যদি কেউ প্রস্তাব নিয়ে আসে সরকার তা গ্রহণ করবে। শ্রমিকদের অধিকার বাস্তবায়নের জন্য ট্রেড ইউনিয়নের যে দাবি উঠেছে সে বিষয়ে তিনি বলেন, ভবিষ্যতে এ বিষয়ে উদ্যোগ নেয়া হবে। বিজিএমইএকে মালিকদের নিজস্ব নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম (সেলফ রেগুলেশন) জোড়দার করতে হবে।

আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, একটি দেশের শিল্পায়নের শুরুর সময় বিভিন্ন ধরনের সমস্যা থাকে। বাংলাদেশেরও সেসব সমস্যা রয়েছে। তবে সবচেয়ে বড় সমস্যা সুশাসনের। দেশের নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোর চালকরা পেশাদার নয়। বর্তমান সময়ে নতুন ধারা সৃষ্টি হয়েছে। আগে ব্যবসায়ীরা রাজনীতিবিদ হয়ে যেতেন। কিন্তু বর্তমানে রাজনীতিবিদরা রাতারাতি ব্যবসায়ী হয়ে যাচ্ছেন। তারা ব্যাংক, বিশ্ববিদ্যালয় ও বীমার মালিক হয়ে যাচ্ছেন।

বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, আমাদের দেশের প্রোপটে সার্বিক অবস্থাকে বিবেচনায় নিতে হবে। দেশে বর্তমানে ৪২-৪৩টি খাত থাকলেও শুধু গার্মেন্ট সেক্টরে যেন অস্বাভাবিকভাবে বেতন বৃদ্ধি করা না হয় সে বিষয়ে সরকারের দৃষ্টি দেয়া উচিত।

রানা প্লাজা ধসে আহত কয়েক গার্মেন্ট শ্রমিক সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন। এক মাসের বেতন ও সামান্য অনুদান ছাড়া আর কোনো সহায়তা না পাওয়ায় চিকিত্সার ব্যয় মিটিয়ে পরিবার পরিচালনা করতে তারা হিমশিম খাচ্ছেন বলে সেমিনারে তাদের কথা তুলে ধরেন।

সেমিনারের সহআয়োজক ছিলেন ইনস্টিটিউট অব আর্কিটেক্ট, বাংলাদেশ (আইএবি), আইন ও শালিস কেন্দ্র (আশক), আহছ্ানিয়া মিশন, অ্যাকশন এইড বাংলাদেশ, গণসারতা অভিযান, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি), ডেইলি স্টার, নারীপ, নিজেরা করি, প্রথম আলো, বাংলাদেশ এনভায়রনমেন্টাল লয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন (বেলা), বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট), মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন ও সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)।

>