বৃহস্পতিবার , ৪ঠা মার্চ, ২০২১ , ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ , ১৯শে রজব, ১৪৪২

হোম > আন্তর্জাতিক > ফিলিস্তিনি মসজিদসহ বিভিন্ন স্থাপনা ধ্বংস করেছে ইসরায়েল

ফিলিস্তিনি মসজিদসহ বিভিন্ন স্থাপনা ধ্বংস করেছে ইসরায়েল

শেয়ার করুন

অনলাইন ডেস্ক ॥
ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে একটি মসজিদ এবং আরও কিছু স্থাপনা ধ্বংস করেছে ইসরায়েলি বাহিনী। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, বুধবার পশ্চিম তীরে অভিযান চালিয়ে এসব স্থাপনা ধ্বংস করা হয়েছে। খবর আনাদোলু নিউজ এজেন্সি।

ওই মসজিদের কাছাকাছি অবস্থিত একটি স্থানীয় স্কুলের পরিচালক মোহাম্মদ ইয়াতিমিন আনাদোলুকে বলেন, হেব্রনের দক্ষিণাঞ্চলীয় উম কুসান শহরের একটি নির্মাণাধীন মসজিদ মিলিটারি বুলডোজার দিয়ে ধ্বংস করা হয়েছে।

এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, জেরুজালেমের পূর্বাঞ্চলীয় খামিস আল জাহালিন এলাকায় আরও একটি কাঠামো ধ্বংস করেছে ইসরায়েলি বাহিনী। এছাড়া বির আল মাস্কুবেও দু’টি স্থাপনা ধ্বংস করা হয়েছে।

বুধবার সকালে ইসরায়েলি বাহিনী পশ্চিম তীরের কয়েকটি এলাকা ঘিরে ফেলে এবং ব্যাপক তাণ্ডব চালায়। তারা ১৪০ বর্গমিটার আয়তনের নির্মাণাধীন মসজিদটি ধ্বংস করে দেয়। এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, মসজিদের কাছের একটি বিদ্যালয়ের কূপও ধ্বংস করা হয়েছে।

বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা ওই কূপের পানি ব্যবহার করতো। কিছুদিন আগে দখলদারী ইসরায়েলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, মসজিদটি নির্মাণের জন্য অনুমতি নেয়া হয়নি। ফলে তা ভেঙে দেওয়া হবে। ফিলিস্তিনিরা বলছে, এরিয়া সি’তে ধ্বংসযজ্ঞ চালানো হয়েছে।

১৯৯৫ সালের অসলো চুক্তি অনুযায়ী, ফিলিস্তিন এবং ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষের মধ্যে পূর্ব জেরুজালেমসহ পশ্চিম তীরকে তিনটি পয়েন্টে ভাগ করা হয়েছে। এগুলো হলো এরিয়া এ, বি এবং সি।

এরিয়া সি’তে বর্তমানে তিন লাখ ফিলিস্তিনির বসবাস। আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী, পশ্চিত তীর ও পূর্ব জেরুজালেমে সব ধরনের ইহুদি স্থাপনা ও ভবন নির্মাণ অবৈধ। কিন্তু ইসরায়েলি বাহিনী কোনো ধরনের আইনের তোয়াক্কা না করে সেখানে নিজেদের ইচ্ছামতো বসতি নির্মাণ করেই যাচ্ছে। একই সঙ্গে সেখানকার ফিলিস্তিনিদের অধিকার থেকে তাদের বঞ্চিত করা হচ্ছে।

>