রবিবার , ২৯শে নভেম্বর, ২০২০ , ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ , ১৩ই রবিউস সানি, ১৪৪২

হোম > Uncategorized > ফেসবুক ও এসএমএসে নির্বাচনী প্রচার নিয়ন্ত্রণে উদ্যোগ নিচ্ছে ইসি

ফেসবুক ও এসএমএসে নির্বাচনী প্রচার নিয়ন্ত্রণে উদ্যোগ নিচ্ছে ইসি

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ইন্টারনেটে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ও সেলফোনের এসএমএসের মাধ্যমে নির্বাচনী প্রচার নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ফেসবুক, টুইটার ও সেলফোনের এসএমএসের মাধ্যমে বিধি লঙ্ঘন এবং অপপ্রচার ঠেকাতে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণবিধিমালা সংশোধনের প্রস্তাব দিচ্ছে ইসি।
সম্প্রতি অনুষ্ঠিত পাঁচ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের বিভিন্ন বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের অভিজ্ঞতা থেকে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তারা। এসব নির্বাচনে বিভিন্ন সময়ে অপপ্রচার রোধে কমিশনকে বিব্রতকর পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হয়েছে বলে জানান তারা।
এছাড়া সিটি করপোরেশন নির্বাচনের পর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময়ে নির্বাচনে ধর্মের অপব্যবহার ও অপপ্রচার রোধে কমিশন ব্যর্থ হয়েছে দাবি করা হয়।
ইসি সচিবালয়ের উপসচিব (নির্বাচন) মিহির সারওয়ার বলেন, সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোয় প্রার্থীদের পক্ষে-বিপক্ষে অপপ্রচার চালানো হয়। এছাড়া উসকানিমূলক বক্তব্যসহ পরস্পরকে কটূক্তি করা হয়েছে। এসব বিষয় নিয়ন্ত্রণে আচরণবিধিতে সংশোধনের প্রস্তাব করা হয়েছে।
প্রস্তাবে বলা হয়েছে, প্রার্থীরা আচরণবিধি অনুসরণ করে প্রচার চালাতে পারবেন তবে সেলফোনের এসএমএস বা ফেসবুক, টুইটারসহ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোয় প্রার্থীর পক্ষে-বিপক্ষে সম্মানহানিকর কোনো প্রচার চালানো যাবে না।
তিনি জানান, বিদ্যমান তথ্যপ্রযুক্তি আইনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই আচরণবিধি সংশোধনের প্রস্তাব করা হচ্ছে। এছাড়া পোস্টার লাগানোর জন্য স্থান সুনির্দিষ্ট করার পাশাপাশি এতে প্রার্থী ও দলীয় প্রধানের সঙ্গে জোট প্রধানের ছবিও রাখার সুযোগের বিষয়টি রাখা হয়েছে। নির্বাচনী প্রচার চালানোর জন্য মাইক ব্যবহারের ক্ষেত্রে ১ ঘণ্টা বাড়িয়ে নির্বাচনী এলাকায় বেলা ২টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

>