বৃহস্পতিবার , ২২শে এপ্রিল, ২০২১ , ৯ই বৈশাখ, ১৪২৮ , ৯ই রমজান, ১৪৪২

হোম > গ্যালারীর খবর > বারিতে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদযাপিত

বারিতে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদযাপিত

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট-এ আজ শনিবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ দিবস উদযাপিত হয়েছে। দিবসটি পালন উপলক্ষে দিনব্যাপী কর্মসূচীর মধ্যে ছিল জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ, আলোচনা সভা, বিশেষ মোনাজাত এবং দিনব্যাপি বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ও অন্যান্য ভাষণ প্রচার।

সকালে বারি’র মহাপরিচালক ড. মো. আব্দুল ওহাব-এর নেতৃত্বে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে দিনের কর্মসূচি শুরু হয়। এরপর ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণের গুরুত্ব ও তাৎপর্যের ওপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বারি’র পরিচালক (সেবা ও সরবরাহ) মো. হাবিবুর রহমান শেখ-এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বারি’র মহাপরিচালক ড. মো. আব্দুল ওহাব।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক (প্রশিক্ষণ ও যোগাযোগ) ড. মো. মিয়ারুদ্দীন, পরিচালক (পরিকল্পনা ও মূল্যায়ন) ড. মো. নাজিরুল ইসলাম, পরিচালক (তৈলবীজ গবেষণা কেন্দ্র) মোছা. দিলআফরোজা খানম, পরিচালক (কন্দাল ফসল গবেষণা কেন্দ্র) ড. এস. এম. শরিফুজ্জামান সহ বারি’র সকলস্তরের বিজ্ঞানী, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শ্রমিকবৃন্দ, বারি বিজ্ঞানী সমিতি (বারিসা), বারি কর্মচারী কল্যাণ সমিতি (বারিকা) এর নেতৃবৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বারি’র মহাপরিচালক ড. মো. আব্দুল ওহাব বলেন, বঙ্গবন্ধু ৭ই মার্চের ভাষণের মাধ্যমে এদেশের মানুষকে স্বাধীনতা সংগ্রামে উজ্জীবিত করেছিলেন। যার ফলে দেশের সাধারণ মানুষ মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল। তাঁর এই ভাষণের মধ্যেই ছিল বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা ও স্বাধীনতার সংগ্রামের পথ নির্দেশিকা। তাই এদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে।

>