বুধবার , ২০শে জানুয়ারি, ২০২১ , ৬ই মাঘ, ১৪২৭ , ৬ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২

হোম > রাজনীতি > বিএনপির সময় সকাল ৯টায় ভোট শেষ হতো: কাদের

বিএনপির সময় সকাল ৯টায় ভোট শেষ হতো: কাদের

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
নির্বাচনে কারচুপি নিয়ে বিএনপির তোলা অভিযোগ অস্বীকার করে তাদের সময়কার নির্বাচনের অনিয়ম নিয়ে পাল্টা প্রশ্ন তুলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, তারা (বিএনপি) ভোট ডাকাতির কথাটা বলে, তারা যে ভোট ডাকাতি করেছে তারপরে তো আমরা ক্ষমতায় আসিনি। এরপরে এরশাদ সাহেবও অনেকদিন ছিলেন, তখনও একটা নির্বাচন হয়েছিল। তাদের সময় সকাল ৯টার মধ্যে অনেক জায়গায় ভোট শেষ হয়ে গেছে, আমার নির্বাচনী এলাকায় ৯টা-১০টার সময় ভোট শেষ করে দিয়েছে। সাড়ে ১০টায় সরকার দলীয় ক্যান্ডিডেট গিয়ে বলেছে এখনো কী ভোট শেষ হয়নি। এগুলোতো তারা করেছে, এ ধরনের নির্বাচনতো আমরা করিনি। তারা নিজেরা হ্যাঁ না ভোট করেছে, না ভোটের বাক্সই ছিল না, এটা কী ধরনের ডাকাতি।

রোববার (০৩ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সমসাময়িক ইস্যুতে প্রেস ব্রিফিংকালে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির অভিযোগ এখন আগের রাতেই ভোট শেষ হয়ে যাচ্ছে, এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তারা এটা বলতেই পারে। তারা নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে যায় না কেন? সেখানে গিয়ে কমপ্লেইন দেয় না কেন? তাদের শক্তি আছে কী নেই সেটা তাদের জিজ্ঞেস করেন।

বিএনপির আন্দোলন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটা দেখতে দেখতে ১২ বছর হয়ে গেলো, আন্দোলন হবে কবে! বছরের শুরুতে বলে এবার সরকার পতনের আন্দোলন, গণঅভ্যুত্থান করব। গণঅভ্যুত্থান তো দূরের কথা ছোট একটা ঢেউও তৈরি করতে পারেনি। কর্মীদের চাঙা রাখতে তারা এসব বলেন। আমরা তাদের স্পেস দিয়ে রেখেছি। তারাতো ক্ষমতায় থাকাকালে আমাদের দলের অন্তঃসত্ত্বা নারীকে পিটিয়েছে। রাজনীতির মাঠ কখনোই সুখকর নয়। নেতারা কর্মসূচি ডেকে বাসায় বসে হিন্দি সিনেমা দেখে। বিরোধী দলে থাকাকালে আমাদের সব নেতা মাঠে ছিল, কর্মীরা আসতে পারত না কিন্তু নেতারা থাকত। অথচ তাদের নেতারা বাসায় বসে ফোনে পুলিশের গতিবিধির খবর নেয়।

তিনি বলেন, বেগম জিয়ার মুক্তি তাদের সাফল্য, কিন্তু তার কৃতিত্ব শেখ হাসিনার, বিএনপিতো সেটা পারে না। শহরের ১ কিলোমিটার রাস্তাজুড়ে তারা মিছিল করতে পারেনি। তারা কী করেছে বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য?

মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবিকে তামাশা উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারা ২০ দল একসাথে ছিল, কই আন্দোলন করলো? আর মধ্যবর্তী নির্বাচন কী মামা বাড়ির আবদার, কী কারণে মধ্যবর্তী নির্বাচন। জনদাবি ছাড়া এটা কিভাবে বলে। হুট করে বিবৃতি দিয়ে দিলাম মধ্যবর্তী নির্বাচন, এটা তো মামা বাড়ির আবদার! আমরা মধ্যবর্তী নির্বাচনের জন্য মধ্যবর্তী তামাশা চাই না।

মন্ত্রিসভায় রদবদল বিষয়ে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্যানডেমিক পরিস্থিতির কারণে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম প্রধানমন্ত্রী তদারকি করছেন। মন্ত্রিসভার বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর এখতিয়ার। তিনি যখন মনে করবেন, তবে কোথাও কোনো অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে বলে আমার জানা নেই। তবুও রুটিন পরিবর্তন হয়, হয়ত করোনা প্যানডেমিকের কারণে সেটি হয়নি।

>