শুক্রবার , ২৩শে এপ্রিল, ২০২১ , ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ , ১০ই রমজান, ১৪৪২

হোম > শীর্ষ খবর > মালয়েশিয়ার লটারিতে আরো ১১,৭০৪ জন নির্বাচিত

মালয়েশিয়ার লটারিতে আরো ১১,৭০৪ জন নির্বাচিত

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মালয়েশিয়ায় সরকারিভাবে ‘জিটুজি’ (গভর্নমেন্ট টু গভর্নমেন্ট) জনশক্তি রফতানির জন্য দ্বিতীয় পর্যায়ের লটারির মাধ্যমে আরো ১১ হাজার ৭০৪ জন বাংলাদেশি নাগরিককে নির্বাচিত করা হয়েছে।

বুধবার সকালে রাজধানীর ইস্কাটনে প্রবাসীকল্যাণ ভবনে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের উপস্থিতিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এই ইলেকট্রনিক লটারি অনুষ্ঠিত হয়। এসময় প্রবাসী কল্যাণ সচিব ড. জাফর আহমেদ খান, জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিণ ব্যুরোর মহাপরিচালক বেগম শামছুন্নাহারসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৩৬৩৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ২২৪৫ জন,  খুলনা বিভাগে ১২৭৮ জন, রাজশাহীতে ১৫৫১ জন, বরিশালে ৭৫৮ জন, সিলেটে ৮৭৩ জন ও রংপুরে ১৩৬১ জন নির্বাচিত হয়েছেন।

এর আগে মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য প্রথম দফা লটারিতে ১১,৭৫৮ জন নির্বাচিত হয়েছিল। তাদের মধ্য থেকে এ পর্যন্ত মালয়েশিয়া গিয়েছে ১৯৮ জন। দ্বিতীয় দফার লটারিতে ২৪ হাজার ২৮০ জনের মধ্য থেকে ১১ হাজার ৭০৪ জন নির্বাচিত হয়।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী জানান, বিশ্বব্যাপী আর্থিক মন্দার কারণে চলতি বছরে জনশক্তি রফতানি কমে এসেছে। ২০১২ সালে ছয় লাখ বাংলাদেশি শ্রমিক বিদেশে গেলেও চলতি বছর শেষে বিভিন্ন দেশ থেকে প্রায় চার থেকে সাড়ে চার লাখ শ্রমিক ফেরত আসবে।

এসময় তিনি সৌদি আরবে অবস্থানরত অবৈধ বাংলাদেশি শ্রমিকদের সে দেশের সরকারের বেধে দেওয়া সময়ের মধ্যে বৈধ কাগজপত্র তৈরি কর নেওয়ার অনুরোধ জানান। অন্যথায় জেল বা বিরাট অঙ্কের জরিমানার কথাও স্মরণ করিয়ে দেন তিনি।

মন্ত্রী জানান, বাংলাদেশ সরকারের অনুরোধে কাগজপত্র বৈধ করার নির্দিষ্ট সময় ৩ মাস বেধে দেওয়া সত্বেও পরবর্তিতে আরো অতিরিক্ত ৪ মাস বৃদ্ধি করেছে সৌদি সরকার। বাংলাদেশিদের এই সুযোগ গ্রহণ করা উচিত।  ৩ নভেম্বর, ২০১৩ এ মেয়াদ শেষ হবে।

তিনি আশা করেন অ্যামনেস্টির সময় শেষ হলে সৌদি আরব বাংলাদেশ থেকে আরো শ্রমিক নেবে।

বাংলাদেশের অন্যতম শ্রম বাজার সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রসঙ্গে মোশাররফ হোসেনে বলেন, ‘আমিরাত সরকারের সঙ্গে এ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক হয়েছে। তারা সেদেশে বিভিন্ন দেশের শ্রমিকদের একটি তালিকা তৈরি করছে। এটি শেষ হলেই তারা আবার নতুন করে শ্রমিক নেওয়া শুরু করবে।’

মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর ধীর গতি সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘সম্প্রতি শেষ হওয়া নির্বাচনের পর দেশটির সরকার সবে সবকিছু গুছিয়ে নিচ্ছে। শীঘ্রই আবারও কর্মী নিয়োগ শুরু হবে। দেশটিতে পাঁচ হাজার পাঁচশ’ নতুন কর্মীর ডাটা পাঠানো হয়েছে। চলতি মাসেই কিছু কর্মীর ভিসা আসতে পারে।’

বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী রোহিঙ্গাদের সৌদি আরবে অবস্থান বিষয়ক এক প্রশ্নের উত্তরে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী জানান, বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী অবাঙালিদের সনাক্ত করতে সৌদি সরকারের কাছে প্রত্যেক নাগরিকের পরিচয়পত্র সরবরাহ করবে মন্ত্রণালয়।

>