বৃহস্পতিবার , ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ , ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৭ , ১২ই রজব, ১৪৪২

হোম > সারাদেশ > রাঙ্গুনিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান চলে যান না ফেরার দেশে: তথ্যমন্ত্রীর শোক

রাঙ্গুনিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান চলে যান না ফেরার দেশে: তথ্যমন্ত্রীর শোক

শেয়ার করুন

এম. এতিন
চট্টগ্রাম ॥
চট্টগ্রাম জেলার রাঙ্গুনিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি, প্রবীণ রাজনৈতিক আলহাজ খলিলুর রহমান চৌধুরী (৯৪) চলে যান না ফেরার দেশে।

আজ বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) বেলা ১২টা ৫০ মিনিটে চট্টগ্রামের পার্কভিউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন। (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না লিল্লহি রাজেউন)।

বার্ধক্যজনিত কারণে ও কিডনি জটিলতায় আক্রান্ত হয়ে খলিলুর রহমান চৌধুরীর মৃত্যু হয়েছে বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।
আলহাজ্ব খলিলুর রহমান চৌধুরীর ৪ সন্তানের মধ্যে ইতোমধ্যে তাঁর ৩ সন্তান মারা গেছেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, ২ মেয়ে, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

আজ রাত ৯ টায় পৌরসভার মুরাদনগর জামে মসজিদ মাঠে মরহুমের জানাজার নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে সমাহিত করা হবে।

প্রবীণ এই রাজনীতিবিদের মৃত্যুতে রাঙ্গুনিয়া উপজেলার রাজনৈতিক অঙ্গণসহ সাধারণ মানুষের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে।

প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা খলিলুর রহমান চৌধুরীর মৃত্যুতে তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এমপিসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গরা শোক প্রকাশ করেছেন।

এক শোকবার্তায় তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আওয়ামী লীগ একজন ত্যাগী প্রবীণ নেতাকে হারিয়েছে। তিনি দীর্ঘ ১৫ বছর রাঙ্গুনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি থাকাকালে অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবেও সর্বজনশ্রদ্ধেয় এই মানুষটি জনহিতকর কাজে নিজেকে নিয়জিত রেখেছিলেন।
উল্লেখ্য, আলহাজ্ব খলিলুর রহমান চৌধুরী সত্তর দশক থেকে রাঙ্গুনিয়া আওয়ামী লীগের একজন সুদক্ষ সংগঠক ছিলেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আদর্শকে বুকে ধারণ করে ছাত্রজীবন থেকেই তিনি আওয়ামী রাজনীতির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত হন। জীবনের সিংহভাগ সময় তিনি আওয়াামী লীগের রাজনীতির পেছনে ব্যয় করেছেন।

আলহাজ্ব খলিলুর রহমান চৌধুরী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ২০০০ সালে রাঙ্গুনিয়া পৌরসভা গঠন করা হলে তিনি পৌর প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার মেয়র পদে নির্বাচন করেন তিনি। তবে সে বার মেয়র নির্বাচিত হন বিএনপির নরুল আমিন।

২০১০ সালে পৌরসভার নির্বাচনে তিনি প্রার্থী হয়ে মেয়র নির্বাচিত হন।

সর্বশেষ তিনি রাঙ্গুনিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয়প্রার্থী হয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবেও দায়িত্ব পালনকালে মৃত্যু বরণ করেন।

এছাড়াও আওয়ামী লীগের প্রবীণ এ নেতা দীর্ঘদিন বিভিন্ন মেয়াদে রাঙ্গুনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন।

ব্যক্তি জীবনে আলহাজ্ব খলিলুর রহমান চৌধুরী একজন সজ্জন রাজনৈতিক ও সমাজসেবক হিসেবে সুপরিচিত ছিলেন।

তিনি উপজেলার আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো: আরিফুল ইসলাম চৌধুরী এর পিতা।

>