বৃহস্পতিবার , ২১শে জানুয়ারি, ২০২১ , ৭ই মাঘ, ১৪২৭ , ৭ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২

হোম > সারাদেশ > শ্রীপুরে আইনশৃঙ্খলা সভায় সড়ক দুর্ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ

শ্রীপুরে আইনশৃঙ্খলা সভায় সড়ক দুর্ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ

শেয়ার করুন

আব্দুল লতিফ আনসারী
শ্রীপুর প্রতিনিধি ॥
গাজীপুর: শ্রীপুরে সড়ক দুর্ঘটনা যে হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে তা উদ্বেগজনক। ড্রাম ট্রাক, ব্যাটারীচালিত অটো রিক্সার অনিয়ন্ত্রিত চলাচল ও ফুটপাত দখলের কারণে দুর্ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে সভায় বক্তারা মন্তব্য করেন। আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাসলিমা মোস্তারীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দিতে গিয়ে গোসিঙ্গা ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান মো. তাজউদ্দিন আহমেদ বলেন, তাঁর ইউনিয়নের তাসমিয়া কসমেটিক্স নামের একটি কারখানা থেকে যাচ্ছেতাইভাবে দূষিতবর্জ্য অপসারণ করা হচ্ছে। এতে পরিবেশের ক্ষতি হওয়ায় তিনি নোটিশ পাঠিয়েছেন। ওই নোটিশের প্রেক্ষিতে তাকে কারখানার পক্ষ থেকে শাসানো হয়েছে।

বরমী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুল হক বাদল সরকার বলেন, সময় না মেনে যখন তখন বালুভর্তি ড্রাম ট্রাক চলাচলের কারণে দুর্ঘটনা বাড়ছে। তিনি ড্রাম ট্রাক চলাচল নিয়ন্ত্রণে রেখে একটি নির্দিষ্ট সময়ে চলাচলের ব্যবস্থা করার সুপারিশ করেন।

সাংবাদিক রানা খান বলেন, বরমী বাজারের পল্টন মোড়, জনতার মোড়, মাওনা চৌরাস্তা, শ্রীপুর চৌরাস্তা, শ্রীপুর বাজার, রেলস্টেশন, মাওনা বাজার রোড এলাকায় রাস্তার ওপর ব্যাটারীচালিত অটোরিক্সা এলোপাতাড়ি অবস্থান করে। এগুলোর কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই।

শ্রীপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি ও দি ডেইলী স্টারের সাংবাদিক প্রভাষক আবু বকর সিদ্দিক আকন্দ বলেন, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ থেকে যেহেতু রিক্সাগুলোর ট্যাক্স গ্রহণ করে সেহেতু ওইসব পরিষদের মাধ্যমেই অটোরিক্সাগুলো তৈরীর নীতিমালা ও চালনা দক্ষতা যাচাই করে অনুমোদন দেয়ার ব্যবস্থা রাখার প্রস্তাব করেন। তিনি দাবী করেন বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ অটোরিক্সায় দুর্ঘটনার শিকার হয়ে পঙ্গুত্ব জীবন যাপন করছেন।

শ্রীপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. আলমগীর হোসেন দুর্ঘটনা ছাড়া উপজেলায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অন্যান্য সময়ের তুলনায় অনেকটাই স্বাভাবিক বলে মন্তব্য করেন। এজন্য তিনি পুলিশ ও প্রশাসন বিভাগকে ধন্যবাদ জানিয়ে এর ধারাবাহিক উন্নয়নের আহবান জানান।

মাওনা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ আর এম আল মামুন বলেন, প্রযুক্তিগত তৎপরতার মাধ্যমে সড়কে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। জুলাই মাস থেকে গত ৬ মাসে ৮টি ছিনতাই ও ডাকাতি মামলা রুজু এবং আসামী গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো: শামসুল আলম প্রধান বলেন, বনের জায়গা থেকে মাটি কেটে বিক্রি, সরকারি পুকুর ও জলাশয় দখল প্রতিরোধে জনসচেতনতা ও কার্যকর আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের পদক্ষেপ নেয়ার প্রস্তাব করেন। তিনিসহ অন্য সদস্যরা পৌরসভার ময়লা আবর্জনা মানুষের ব্যক্তি মালিকানা জায়গায় ফেলায় দুর্ভোগের কথা উল্লেখ করে সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করেন।

সভার সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাসলিমা মোস্তারী ড্রাম ট্রাকের লাইসেন্স পরীক্ষা, অনুমোদনহীন বেকারীর তালিকা প্রণয়ন এবং সীমিত আকারে অটোরিক্সার লাইসেন্স প্রদানের জন্য সংশিষ্ট দাপ্তরিক প্রধানদের ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। একইসাথে সকল পর্যায়ে সচেতনতা তৈরীর কথাও উল্লেখ করেন। যেখানে সেখানে পৌরসভার ময়লা আবর্জনা ফেলার ব্যাপারে পরবর্তী সময়ে একই বিষয়ের ওপর সকলের অংশগ্রহণে সিদ্ধান্ত গ্রহণমূলক সভা করার কথা জানান। তিনি ধর্ষণ ঘটনা বৃদ্ধিরও সমালোচনা করে এ ক্ষেত্রে জনসচেতনতা বৃদ্ধির গুরুত্বারোপ করেন।

সভায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা নাসরিন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. প্রণয় ভূষণ দাস, জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন উপজেলা দপ্তরের প্রধান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, বিভিন্ন কমিউনিটির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

>