বৃহস্পতিবার , ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ , ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ , ১৭ই রবিউস সানি, ১৪৪২

হোম > Uncategorized > শ্রীলঙ্কায় প্রোটিয়াদের হাসি

শ্রীলঙ্কায় প্রোটিয়াদের হাসি

শেয়ার করুন

স্পোর্টস ডেস্ক ॥ টি-২০ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার ইনিংসে উইকেট পড়লো ৯টি। আর পুরো ইনিংসে দুই অঙ্কে পৌঁছতে পারলেন মাত্র দুইজন ব্যাটসম্যান। এর একজনের রান ৫৯ অপর জনের ১১। ছোট টার্গেটের পেছনে ছুটেও এতে মুখ থুবড়ে পড়লো স্বাগতিকরা। আর দণি আফ্রিকা জয় নিয়ে শুরু করলো ৩ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। শুক্রবার কলম্বোয় দণি আফ্রিকার জয়টি ১২ রানের।  পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে এর আগে  সফরকারী প্রোটিয়াদের শ্রীলঙ্কা হারিয়েছে হেসে খেলেই। এতে ৪-১ এ সিরিজ হেরে  দণি আফ্রিকা চাপে ছিল একতরফা। তবে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক লঙ্কানদের চাপ ফিরিয়ে দিতে পেরে বেশ খুশি দণি আফ্রিকা অধিনায়ক ফ্যাফ ডু প্লেসিস। শুক্রবার রাতে লো স্কোরিং ম্যাচে দণি আফ্রিকা ১২ রানে হারায় শ্রীলঙ্কাকে। আর জয় নিয়ে ডু প্লেসিস বলেন- তাদের (শ্রীলঙ্কা) চাপে ফেলতে পেরে খুব ভাল লাগছে। টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ে ম্যাচে শুরুর ভোগান্তিটা ছিল প্রোটিয়াদেরই। ২০ ওভারে ৬ উইকেটে দণি আফ্রিকার সংগ্রহ ছিল মাত্র ১১৫ রান। তবে জবাবে শ্রীলঙ্কার ব্যাটিংয়ে প্রোটিয়াদের এ রান দেখাচ্ছিল পর্বতসমান। কুমার সাঙ্গাকারা ৫৩ বলে ৫৯ রানের অপরাজিত ইনিংস খেললেও বাকিদের ব্যর্থতায় স্বাগতিকদের জয় দুরেই থাকে । ওপেনার কুসাল পেরেরা করেন ১১ রান । আর দুই এক রানে সীমাবদ্ধ ছিল বাকি লঙ্কানদের এদিনের  ব্যক্তিগত সংগ্রহ।  ডু প্লেসিস বলেন, কুমার সাঙ্গাকারা, তিলকরতেœ দিলশান ও থিসারা পেরেরাকে নিয়ে আমাদের আলাদা পরিকল্পনা ছিল। তৃতীয় ওয়ানডেতে প্রোটিয়া বোলার সতসবের এক ওভারে ৫ ছক্কা ও এক বাউন্ডারিতে ৩৫ রান তোলেন থিসারা। চলতি সিরিজে ব্যাটহাতে আলাদা সরব সাঙ্গাকারা শুক্রবার বাড়তি সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন। ডু প্লেসিস বলেন, আমাদের কাছে সাঙ্গাকারার উইকেটটি বড়। জেপি (ডুমিনি) সাঙ্গাকারার ক্যাচ ফেলে দিলে ভেবেছিলাম আবার বুঝি অনর্থ হলো। তবে সাঙ্গাকারাকে শেষ পর্যন্ত নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছিলাম আমরা। আর প্রথম টি-টোয়েন্টিতে হার নিয়ে দলের ব্যাটিংকে দুষলেন শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক দীনেশ চণ্ডীমাল। বলেন, পিচে দোষের কিছু দেখিনি। আমরা বরং প্রতিপকে উইকেট দিয়েছি পরিস্থিতি না বুঝে বাজে শটে।
মালিঙ্গার ৫০, ডুমিনির ১০০০
এদিন ম্যাচের নায়কও জেপি ডুমিনি। দলের সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন জেপি ডুমিনি। আর বল হাতে লঙ্কানদের কাছে আলাদা ভেল্কি হয়েছিল ডুমিনির স্পিন। অকেশনাল বোলার ডুমিনি ৪ ওভারে ১৮ রান দিয়ে নেন তিন উইকেট। এদিন এক বাউন্ডারিতে দুই মাইলফলক উন্মোচন করেন প্রোটিয়া এ ব্যাটসম্যান। ম্যাচে পূরণ হয় তার ব্যক্তিগত অর্ধশতক। অজন্তা মেন্ডিসের ফুলটস বল স্লগ সুইপে মাঠ ছাড়া করেন ডুমিনি আর পরিসংখ্যানে এক মর্যাদার তালিকায় ছাড়িয়ে যান শীর্ষ ব্যাটসম্যান গ্রায়েম স্মিথকে। এ বাউন্ডারিতে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে জেপি ডুমিনির পূরণ হয় ১০০০ রান। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এই প্রথম প্রোটিয়া কোন ব্যাটসম্যান ১০০০ রান পার করলেন। ম্যাচ শেষে ডুমিনির উচ্ছ্বাসও ছিল আলাদা। বলেন, ব্যাট-বলে ভাল করতে পেরে খুব খুশি লাগছে। ইদানীং বল হাতে নিচ্ছিলাম না খুব একটা। তবে দলের প্রয়োজনে নতুন ভূমিকাটা উপভোগই করছি। এদিন এ ল্যান্ডমার্ক ছুঁয়েছেন লঙ্কান পেস ঝড় লাসিথ মালিঙ্গাও। টি-টোয়েন্টির স্পেশালিস্ট খ্যাত এ বোলার ম্যাচে পেয়েছেন এক উইকেট।  আর এতে পূরণ হয়েছে তার আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ৫০ উইকেট।

সংপ্তি স্কোর
টস: দ. আফ্রিকা, ব্যাটিং
দ. আফ্রিকা: ২০ ওভার ১১৫/৬ (ডুমিনি ৫১, মিলার ২৫, সেনানায়েকে ৩/১৪)।
শ্রীলঙ্কা: ২০ ওভার ১০৩/৯ (সাঙ্গাকারা ৫৯*, কুসাল ১১, ডুমিনি ৩/১৮, পারনেল ২/৮, মরকেল ২/২৮)।
ফল: দ. আফ্রিকা ১২ রানে জয়ী
ম্যাচ সেরা: ডুমিনি (দ. আফ্রিকা)
২য় টি-টোয়েন্টি শুরু সন্ধ্যা ৭:৩০, টেন ক্রিকেট।

>