শনিবার , ১৬ই জানুয়ারি, ২০২১ , ২রা মাঘ, ১৪২৭ , ২রা জমাদিউস সানি, ১৪৪২

হোম > রাজনীতি > ষড়যন্ত্রকারীরা পলাশে আ.লীগকে পূর্বের অবস্থায় নিয়ে যেতে চায়: এমপি দিলীপ

ষড়যন্ত্রকারীরা পলাশে আ.লীগকে পূর্বের অবস্থায় নিয়ে যেতে চায়: এমপি দিলীপ

শেয়ার করুন

বিল্লাল হোসেন
নরসিংদী প্রতিনিধি ॥
নরসিংদী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও পলাশ উপজেল আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব ডাঃ আনোয়ারুল আশরাফ খান দিলীপ বলেন, আমরা এতো কষ্ট করে যে আওয়ামীলীগকে প্রতিষ্ঠা করেছি সেই আওয়ামীলীগের ভিতর ষড়যন্ত্রকারীরা ঢুকেছে। ষড়যন্ত্রকারীরা এই পলাশে আওয়ামীলীগকে আবার সেই ২০০৮ এর পূর্বের অবস্থায় নিয়ে যেতে চায়। আপনারা সাবধান থাকবেন। ঘোড়াশাল পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আজকে এই সভা করা হয়েছে। আজকে আমাদের প্রার্থীকে নিয়ে আমরা হাজির হয়েছি। আরও প্রার্থী হচ্ছে আমার কোন আপত্তি, হিংসা ও দ্বিধা নাই।

বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল পৌর এলাকার খানেপুর বটতলা মাঠে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় ঘোড়াশাল পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ ও সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত এ মতবিনিময় সভা জনস্রোতে পরিণত হয়।

ঘোড়াশাল পৌর আওয়ামীলীগের ১ নং ওয়ার্ড সভাপতি গোলাম মোস্তফা সরকারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক বাদলের সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ওবায়দুল কবির মৃধা।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পলাশ উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ জাবেদ হোসেন, ঘোড়াশাল পৌর মেয়র আলহাজ্ব শরীফুল হক, ঘোড়াশাল পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এস.এম শফি, নরসিংদী জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আলহাজ্ব মাহফুজুল হক টিপু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কারীউল্লাহ সরকার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা আক্তার ও উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি আমিনুল হক ভূঁইয়া প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন আনু, উপজেলা ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক আপেল মাহমুদ শাহিন, ঘোড়াশাল পৌর যুবলীগের সভাপতি মোঃ মনির হোসেন মোল্লা, গজারিয়া, জিনারদী, ডাংগা, আমদিয়া, পাঁচদোনা ও মেহের-পাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগণ।

ডা: আনোয়ারুল আশরাফ দিলীপ এমপি বলেন, পৌরসভা নির্বাচন হোক আর যেকোন নির্বাচন হোক সেখানেই প্রার্থী হতেই পারে। আমরা যে প্রার্থী দিব আর অন্যরা যে প্রার্থী দিবে তারা কোন প্রার্থী না এটা আমি বিশ্বাস করিনা, এই রাজনীতি আমি করিনা।

তিনি বলেন, আজকে আপনারা দলের ভিতর ভাঙ্গন না ধরিয়ে, দলের ভিতর জামাত বিএনপির ঘাটি না বাড়িয়ে, দলকে প্রশ্নের সম্মুখীন না করে আসুন আপনারা প্রার্থী হোন। আপনাদের নাম আমরা পাঠাই তখন জননেত্রী শেখ হাসিনা ঠিক করুক কাকে দিবে আর কাকে দিবেনা। কিন্তু আপনার কি করছেন, আমি বলছি ওমুকে প্রার্থী ওমুকে প্রার্থী হয়ে গেল। এক ব্যক্তির শাসন, আস্ফালন ও এক ব্যক্তির দ্বারা নিয়ন্ত্রিত একটা বাহিনী তৈরি করেছেন।

তিনি আরও বলেন, আমি আপনাদের জোর হাত অনুরোধ করতে চাই এতো কষ্টের দলকে আপনারা ভাঙনের হাতে ফেলে দিবেন না। কর্মীদেরকে দ্বিধা বিভক্ত করবেন না। জননেত্রী শেখ হাসিনা যদি আপনাদের প্রার্থী সঠিক হয় আর তিনি নমিনেশন দেন তাহলে আমরা সবাই মিলে আমি নিজে আপনাদের নির্বাচন করবো। কিন্তু আপনারা আমাদের দলে বিভক্তি সৃষ্টি করে এই দলকে আপনারা নষ্ট করবেন না।

>