রবিবার , ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ , ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ , ১৫ই রজব, ১৪৪২

হোম > খেলা > ‘সে নিজেকে ধোনি ভাবতে শুরু করেছিল’

‘সে নিজেকে ধোনি ভাবতে শুরু করেছিল’

শেয়ার করুন

স্পোর্টস ডেস্ক ॥
মহেন্দ্র সিং ধোনি একজনই। তার মতো কি চাইলেই হওয়া সম্ভব? এই ব্যাপারটিই বুঝতে পারেননি রিশাভ পান্ত। নিজেকে ধোনি ভাবতে শুরু করেছিলেন। যার ফলশ্রুতিতেই বড় ধাক্কা খেয়ে ছিটকে পড়েছেন, এমনটা মনে করেন খোদ ভারতীয় দলের সাবেক প্রধান নির্বাচক এমএসকে প্রসাদ।

গত ১৫ আগস্ট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরে গেছেন ধোনি। কিন্তু তার বিকল্প বের করার চেষ্টাটা চলছিল অনেক দিন ধরেই। রিশাভ পান্তের মধ্যে প্রতিভা দেখেছিলেন নির্বাচকরা। এমনকি বিশ্বকাপের মতো বড় মঞ্চে পান্তকে খেলাবেন নাকি ধোনিকে, দ্বিধায় ছিলেন তারা। পান্ত এমনভাবেই জায়গাটার দাবি তুলেছিলেন।

সেই পান্তের এখন নাম নিশানা নেই। টানা যাচ্ছেতাই পারফরম্যান্সের পর তার আশা বলতে গেলে ছেড়ে দিয়েছেন ভারতীয় নির্বাচকরা। কিন্তু যাকে নিয়ে এতটা মাতামাতি ছিল, তাকে নিয়ে কেন এতটা হতাশ নির্বাচকরা?

আসল ব্যাপার হলো, শুধু খারাপ পারফরম্যান্সই নয়, কিপিং এবং ব্যাটিং দুই বিভাগেই পান্তের অনেক দায়িত্বজ্ঞানহীনতা চোখে পড়েছে আলাদাভাবে। বাধ্য হয়েই নির্বাচকরা লোকেশ রাহুলকে এই জায়গায় নিয়ে এসেছেন। আর রাহুলও জায়গাটা শক্ত করে ধরে ফেলেছেন।

কিন্তু এত প্রতিভা নিয়ে দলে এসেও কেন এভাবে ধূমকেতুর মতো মিলিয়ে গেলেন পান্ত? ভারতীয় দলের সাবেক প্রধান নির্বাচক, যিনি কিনা ধোনির জায়গায় পান্তকে দাঁড় করানোর প্রক্রিয়াতে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত ছিলেন, সেই প্রসাদ ব্যাখ্যা করলেন কারণটা।

‘স্পোর্টসকিদা’র সঙ্গে আলাপে প্রসাদ জানান, মূলত ধোনির সঙ্গে তুলনাই সর্বনাশ করেছে পান্তের। এমনকি এই তরুণ একটা সময় নিজেকে ধোনি ভাবতেও শুরু করেন। ওই ভাবনার মধ্যে চাপা পড়ে যায় নিজের প্রতিভা।

প্রসাদ বলেন, ‘রিশাভ যখনই এসেছে, সবসময় তাকে ধোনির সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে। সম্ভবত সেও এই লতার মধ্যে জড়িয়ে গিয়েছিল। অনেকবারই আমরা তাকে বলেছি এটা থেকে বেরিয়ে আসতে। বলেছি- মাহি একদম আলাদা ব্যক্তিত্বের। তুমি আলাদা, তুমিও দুর্দান্ত। তোমার মধ্যে প্রতিভা আছে বলেই আমরা তোমাকে নিয়েছি।’

কিন্তু পান্ত সেটা মাথা থেকে নামাতে পারেননি। আর ধোনির ছায়ার মধ্যে ঢুকে গিয়েই সর্বনাশ করেছেন নিজের। প্রসাদের ভাষায়, ‘সে সবসময় ধোনির ছায়ার মধ্যে ছিল। সে নিজেকে ধোনির সঙ্গে তুলনা করতে শুরু করে। এমনকি তাকে নকল করতে থাকে। সেটা আচরণ হোক কিংবা অন্য কিছু। আপনারা তার কাজ দেখলেই বুঝতে পারবেন।’

>