বৃহস্পতিবার , ২১শে জানুয়ারি, ২০২১ , ৭ই মাঘ, ১৪২৭ , ৭ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২

হোম > আন্তর্জাতিক > ১৯’র চেয়ে ২০-এ বিমান দুর্ঘটনায় বেশি মৃত্যু

১৯’র চেয়ে ২০-এ বিমান দুর্ঘটনায় বেশি মৃত্যু

শেয়ার করুন

অনলাইন ডেস্ক ॥
২০২০ সাল ছিল অন্যতম একটি ঘটনাবহুল বছর। বিশেষ করে করোনা মহামারির কারণে বছরটি নিয়ে মানুষের হতাশার শেষ নেই। বিভিন্ন দেশে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস ভয়াবহ বিপর্যয় ডেকে এনেছে।

শুধুমাত্র করোনা মহামারি নয়, ২০২০ সাল অনেক কারণেই মানুষের কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। এদিকে, সম্প্রতি এক পরিসংখ্যান বলছে, ২০২০ সালে আগের বছরের তুলনায় বিমান দুর্ঘটনায় বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। অর্থাৎ একদিকে করোনায় মানুষ মারা গেছে অপরদিকে বিভিন্ন দুর্ঘটনায়ও বহু মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। সে কারণেই ২০২০ সাল যেন এক বিভীষিকাময় বছর হয়েই থাকবে।

করোনা মহামারির কারণে গত বছর প্রায় পুরোটা সময়ই বিমান চলাচল আগের বছরের তুলনায় অনেক কম ছিল। কিন্তু তারপরেও গত বছর বিভিন্ন স্থানে বিমান দুর্ঘটনায় ২৯৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। অথচ তার আগের বছর বিমান চলাচল বেশি থাকলেও মারা গেছে ২৫৭ জন।

একটি সংস্থার প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২০ সালে বাণিজ্যিক বিমানের দুর্ঘটনায় সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। ডাচ এভিয়েশন কনসালটেন্সি টু৭০ জানিয়েছেন, ২০২০ সালে ২৯৯ জন বিমান দুর্ঘটনায় মারা গেছে যেখানে ২০১৯ সালে মারা গেছে ২৫৭ জন।

গত বছর করোনা মহামারির কারণে বিভিন্ন দেশে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার মধ্যেও মৃত্যু বেড়েছে যা বেশ আশঙ্কাজনক। ট্র্যাকিং সাইট ফ্লাইটরাডার ২৪ জানিয়েছে, গত বছর কমার্শিয়াল ফ্লাইটের সংখ্যা ৪২ শতাংশ কমেছে। তারপরেও দুর্ঘটনায় মৃত্যুর হার ছিল বেশি।

টু৭০ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, গুলি করে বিমান ভূপাতিতসহ বড় ধরনের বিমানের সব দুর্ঘটনাই অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। গত বছরের জানুয়ারিতে ইরানের সেনাবাহিনী ইউক্রেন ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে ভুল করে ভূপাতিত করেছিল। ওই দুর্ঘটনায় ১৭৬ জন নিহত হয়।

বিমান দুর্ঘটনার পরিসংখ্যানে ইউক্রেনের বিমান বিধ্বস্তে হতাহতের সংখ্যাও অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। অপরদিকে ওই তালিকায় অন্তর্ভূক্ত আরও একটি বড় দুর্ঘটনা ঘটেছে পাকিস্তানে। গত মে মাসে পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের (পিআইএ) একটি বিমান করাচিতে বিধ্বস্ত হয়। ওই দুর্ঘটনায় ৯৮ জন নিহত হয়।

তবে গত বছর মৃত্যুর সংখ্যা বাড়লেও বিমান দুর্ঘটনার সংখ্যা অনেক কমেছে। আগের বছর মোট বিমান দুর্ঘটনা ঘটেছে ৮৬ বার। অপরদিকে, গতবারের দুর্ঘটনার সংখ্যা ছিল ৪০। অবশ্য মহামারির কারণে বিমান চলাচল কম ছিল বলেই দুর্ঘটনাও কম হয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে।

>